Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘আমার প্রতিদ্বন্দ্বী কেউ নেই’, হাজী নুরুল ইসলামের স্পষ্ট কথা

1 min read


।। ময়ুখ বসু ।।


উত্তর ২৪ পরগণা জেলার হাড়োয়া বিধানসভা কেন্দ্র। এই কেন্দ্রে এবারে তৃণমূল প্রার্থী হাজী নুরুল ইসলাম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আদর্শের উপর দাঁড়িয়ে ভয়হীন এই প্রার্থী সাফ জানিয়ে দিলেন, এই কেন্দ্রে তিনি বিজেপি বা জোটের কোনও প্রার্থীকেই তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে মনে করছেন না। এখানে তাঁর কোনও প্রতিদ্বন্দ্বী নেই বলেই সাফ জানিয়ে দিলেন তিনি। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের এই ময়দানে দাঁড়িয়ে হাজী নুরুল ইসলামের দাবি, এবারে তিনি হাড়োয়া কেন্দ্র থেকে ১ লক্ষের বেশী ব্যবধানে জয়ী হবেন। তিনি বলেন, গত বিধানসভা ভোটে আমরা ৪৪ হাজার ভোটে লিড পেয়েছিলাম। এবারে সেই মার্জিন ১ লক্ষের ঘরে নিয়ে যাওয়াই আমার মূল টার্গেট।

তবে রাজনৈতিক মহলের মতে, এই কেন্দ্রে এবারে বাম-কংগ্রেস-আব্বাস জোটের সঙ্গে জোরদার টক্কর হতে পারে। এছাড়া ময়দানে রয়েছে বিজেপির প্রার্থীও। তবে বিরোধী প্রার্থীদের ধর্তব্যের মধ্যে আনতে নারাজ তৃণমূল প্রার্থী হাজী নুরুল ইসলাম। সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্ক অধ্যুষিত এই হাড়োয়া কেন্দ্রে মূলত মানুষদের প্রধান জীবন জীবিকা ভেড়ি নির্ভর। সেখানে দাঁড়িয়ে হাজী নুরুলের দাবি, বর্তমান রাজ্য সরকার ভেড়ি সংস্কার এবং চিংড়ি চাষের ক্ষেত্রে যেভাবে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাতে এলাকার মানুষ খুশী।

তার উপর এই প্রত্যন্ত অঞ্চলে তৈরি করা হয়েছে আইটি কলেজ। যেখানে এলাকার বহু ছেলে মেয়েরা শিক্ষা নিচ্ছেন। মূলত দীর্ঘ বাম জমানায় বোমা গুলির শিরোনামে উঠে আসা এই কেন্দ্রে এখন উন্নয়নের পরশ লেগেছে বলে দাবি হাজী নুরুলের। আর সেই উন্নয়নের উপর ভর করেই এই কেন্দ্রে বিপুল ভোটে তিনি জয় পাবেন বলেই সাফ জানিয়ে দিলেন। তিনি বলেন, এবারের ভোটে তাঁর প্রধান হাতিয়ার হল দুয়ারে সরকার এবং স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প। রাজ্য সরকারের এই দুটি জনপ্রিয় প্রকল্পের কারনে তিনি বিপুল জনসমর্থন পাচ্ছেন।

আরো পড়ুন : ‘দুবাইতে সম্পত্তি আছে, গদ্দারকে জব্দ করুন’, রাজীবকে বেনজির আক্রমণ মমতার

তিনি বলেন, করোনার সময় আমরা এই কেন্দ্রের মানুষদের পাশে ছিলাম। তাদের বিপদে আপদে সব সময়ই ছুটে গিয়েছি আমরা। তাই ভোটের সময় কে এসে কি প্রতিশ্রুতি দিলো তার কোনও প্রভাব পড়বে না এই কেন্দ্রে। মানুষ আজ মমতার নামেই উৎসাহীত ও উতফুল্লভাবে পথে নেমেছেন। হাজী নুরুলের দাবি, এবারে গোটা রাজ্যে ২০০ টির বেশী আসন নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসবেন। আর সেক্ষেত্রে হাড়োয়া বিধানসভা কেন্দ্রে জয়ের রেকর্ড গড়বে তৃণমূল। তিনি বলেন, নন্দীগ্রামে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার ভোটে জিতবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

হাজী নুরুল ইসলাম বলেন, এই কেন্দ্রে ভোট জিতে একটি ফিশারি হাব তৈরি করবো । আর সেটা তৈরি হলে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। ইতিমধ্যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় কবি শাহাদাত হোসেনের নামে একটি গার্লস স্কুল তৈরি করা হয়েছে। ফলে বাম জমানায় অন্ধকারে ডুবে থাকা হাড়োয়া কেন্দ্রে আজ আলোর দিশা জেগেছে। আর সেই আলোর দিশায় দাঁড়িয়ে এবারের ভোটে এই কেন্দ্রে তৃণমূলের জয় সুনিশ্চিত।