গুন্ডা বললেও পরোয়া করি না, বিশ্বভারতী প্রসঙ্গে মমতা

।। রাজীব ঘোষ ।।

মেলার মাঠ পাঁচিল দিয়ে ঘেরার বিরুদ্ধে শান্তিনিকেতনে যে প্রতিবাদ আন্দোলন সংগঠিত হয়েছে দলীয় পতাকা না নিয়ে তৃণমূলের কর্মীরা সেই আন্দোলন করবে। জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বেশ কয়েকদিন ধরেই বিশ্বভারতীর মেলারমাঠ আশ্রম সহ বেশ কিছু জায়গা পাঁচিল দিয়ে ঘেরা বিরুদ্ধে সেখানে আন্দোলন সংগঠিত হয়েছে। সেই বিষয়ে স্পষ্ট প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মমতা।

বিশ্বভারতীর মুক্তচিন্তার পরিবেশ নষ্ট করে মেলারমাঠ এবং আশ্রমের বেশ কিছু জায়গায় পাঁচিল দিয়ে ঘেরার জন্য কেন্দ্র এবং বিজেপির প্রত্যক্ষ মদত রয়েছে বলে মনে করে তৃণমূল। এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন মেলারমাঠ পাঁচিল দিয়ে ঘেরা তিনি সমর্থন করেন না। এর পরে তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন বিশ্বভারতীর ঐতিহ্য নষ্ট করে দেওয়ার বিরুদ্ধে আন্দোলন থেকে তারা সরে আসবে না।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে বৈঠক ডাকা হলেও বিশ্বভারতীর কর্তৃপক্ষ সেই বৈঠকে যোগ দেননি। সেই বিষয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন বাম আমলে সালিশি সভায় ডেকে গণপিটুনি দেওয়া হতো। তৃণমূলের আমলে ও সালিশি সভায় কর্মীদের খুন করা হয়েছে। উপাচার্য সুরক্ষিত নন। তাই যান নি। মমতা বলেন স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই রবীন্দ্রনাথের মুক্ত চিন্তা মুক্ত শিক্ষার প্রতিষ্ঠান শান্তিনিকেতন শুধু আমাদের নয় সারা বিশ্বের গর্ব। সেই ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতি যদি ধ্বংস করতে চায় সেখানে গণ প্রতিবাদ হওয়াই স্বাভাবিক।

সেই প্রতিবাদে পাশে থাকার জন্য কেউ গুন্ডা বললেও পরোয়া করিনা। অমর্ত্য সেন থেকে শুরু করে বহু বিশিষ্ট প্রাক্তনী আশ্রমিক এবং স্থানীয় মানুষ আশ্রম চত্বর পাঁচিল দিয়ে ঘেরার বিরুদ্ধে তাদের মতামত ব্যক্ত করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান প্রকৃতিকে আঘাত করলে প্রকৃতির প্রতিশোধ নেয়। কখনো সেটা প্রাকৃতিক ভাবে কখনো মানুষের বিক্ষোভ আন্দোলন এর মাধ্যমে। রবীন্দ্রনাথের ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতি ও শান্তিনিকেতন রক্ষা করার জন্য সব আন্দোলনের পাশে থাকবে তৃণমূল।