Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

“আমি ওকে বলি সাদা হাতি”কাকে বললেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

বাঁকুড়ার মেজিয়ার শ্রীনগর কলোনি এলাকার একটি জনসভা থেকে রবিবার নাম না করে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরকে (Jagdeep Dhankar) হোয়াইট এলিফেন্ট, সাদা হাতি বলে কটাক্ষ তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Kalyan Bandopadhyay)। সভা থেকে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের
(Kalyan Bandopadhyay) বলেন, ‘আমি ওকে বলি হোয়াইট এলিফেন্ট, সাদা হাতি। সাদা হাতি পুষতে যত খরচা হয়, তেমনি ওকে রাখতে তেমনি খরচা।’ তিনি আরও বলেন, ‘দার্জিলিং যাওয়ার পথে শিলিগুড়িতে প্রেস কনফারেন্স করে বলল’ এরপর মুখের অঙ্গভঙ্গি করে কটাক্ষ করেন নাম না করে রাজ্যপালকে তৃণমূল সাংসদ।

শেষে তিনি সংযোজন করেন ‘আরে কোথা থেকে পেলি ফিগার’ বলেই সম্বোধন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Kalyan Bandopadhyay)। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের পাশাপাশি বাঁকুড়ার মেজিয়ার শ্রীনগর কলোনি এলাকার জনসভা থেকে নাম না করে সদ্য তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারীর (Shubhendu Adhikari) বিরুদ্ধেও তোপ দাগেন তিনি। তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (Kalyan Bandopadhyay) মন্তব্য করেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Bandopadhyay) গাছের তলায় ছিলে বলে এত বড় হয়েছ। না হলে তোমাকে চিনতেও কেউ পারত না।

আরো পড়ুন :“বাবাকে হারিয়েছিলেন ৫৯০০ ভোটে”বিজেপিকে ধন্যবাদ দিলেন শুভেন্দু

তিন তিনটে দফতরের মন্ত্রী, তিনখানা সংস্থার চেয়ারম্যান। আর কিছু দেওয়ার বাকি ছিল’ বলে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন তিনি। পাশাপাশি তিনি কটাক্ষ করে বলেন, ‘বলে আমার কোনো লোভ নেই, যেন স্বামী বিবেকানন্দ, আহা রে। আমার কোন লোভ নেই রামকৃষ্ণদেব। কি আর বাকি ছিল।’ শুভেন্দু অধিকারীকে (Shubhendu Adhikari) ঠুকে তিনি আরও বলেন, ‘আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খুব খারাপ লোক একটা জিনিস বাকি ছিল মমতাদি দেননি বলে, বাবা আয়, বাবা আয়, বাবা তুই কাঁথির মেজবাবু আয় কাজু বাদাম খা, সোনা আমার, আয় মুখ্যমন্ত্রীর সিট-টায় বসে পড়’ বলে নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে (Shubhendu Adhikari) কটাক্ষ করেন সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (Kalyan Bandopadhyay)।

কটাক্ষ করে তিনি আরও বলেন, ‘বলে পান্তা ভাত খাই।’ তার প্রশ্ন, ‘জমিদারের ছেলে পান্তা ভাত খাও?’ তার মন্তব্য, ‘কাজু বাদাম খাওয়া চেহারা’। পাশাপাশি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) বিষয় তার মন্তব্য ‘আগে আমি দিলীপ ঘোষকে বলতাম ক্ষ্যাপা দিলীপ। ওটা একটা পাগলা দিলীপ ওর একটু ট্রিটমেন্টের দরকার আছে, কিন্তু ক্ষ্যাপা ষাঁঢ়ের কোন ট্রিটমেন্ট নেই। তাই বঙ্গ বিজেপির এই যে এত ক্ষ্যাপা ষাঁঢ় আছে’, পাশাপাশি তার মন্তব্য ‘এখন আমাদের দল থেকেও বেশ কিছু মীরজাফর টপকে চলে গিয়ে বিরাট ভাবছে সেও কিন্তু ক্ষ্যাপা ষাঁঢ়ের মত দৌড়াচ্ছে এখন।’ বলেও কটাক্ষ তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Kalyan Bandopadhyay)।