Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

নজরে হাওড়া, ফের কি তৃণমূল বড়োসড়ো ভাঙনের মুখে দাঁড়িয়ে?

1 min read


।। ময়ুখ বসু ।।


ফের কি তৃণমূল বড়োসড়ো ভাঙনের মুখে দাঁড়িয়ে? রাজ্য রাজনীতিতে ফের এই আশংকা মাথাচাড়া দিতে শুরু করে দিয়েছে। এবারে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপি (bjp) নেতা অমিত শাহের (Amit Shah) বঙ্গ সফরে হাওড়া জেলা ঘিরে আশংকার মেঘ জমতে শুরু করে দিয়েছে। রাজনৈতিক মহলের ধারনা, এর আগে অমিত শাহ মেদিনীপুরে সফরের সময় শুভেন্দু সহ একগুচ্ছ তৃণমূল নেতা বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। এবারে কি শাহের হাওড়া সফরের আগে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে? অবশ্য তেমনই আভাস দেখা দিচ্ছে হাওড়ায় তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে। হাওড়া জেলায় তৃণমূল নেতা অরুপ রায় এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ( Rajiv Banerjee) গোষ্ঠীর কোন্দলকে যেন কিছুতেই বাগ মানানো যাচ্ছে না।

এদিকে জানুয়ারি মাসে বঙ্গ সফরে এসে হাওড়ায় সভা করবেন অমিত শাহ (Amit Shah)। সেই সভাতে কি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের অন্য নেতারা বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন? জল্পনার পারদ চড়ছে। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, যেভাবে মেদিনীপুরে শুভেন্দু অমিত শাহের সভাতে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন সেইভাবেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও বিজেপিতে চলে যেতে পারেন। তবে শুধু রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়েই আশংকা নয়, আশংকা বাড়ছে তৃণমূলের হাওড়া জেলার একাধিক বিক্ষুব্ধ নেতা ও নেত্রীকে নিয়েও।

আরো পড়ুন : লক্ষ্মণ শেঠ- কিষেণজিদের সোজা করেছি, ‘রাবণ’দের হুঁশিয়ারি শুভেন্দুর

আশংকার কালো মেঘের মধ্যেই ইতিমধ্যে রাজ্যের মন্ত্রীসভা থেকে মন্ত্রীত্ব ছেড়েছেন হাওড়া জেলা তৃণমূলের সভাপতি লক্ষীরতন শুক্লা (Lakshiratan Shukla)। অন্যদিকে ফের মন্ত্রীসভার বৈঠকে অনুপস্থিত থেকেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে বেসুরো বাজছেন হাওড়ার বালির বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া থেকে দাপুটে তৃণমূল নেতা তথা হাওড়ার প্রাক্তন মেয়র রথীন চক্রবর্তীও। রথীন চক্রবর্তী (Rathin Chakraborty) তোপ দেগেছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের দিকেও। উল্লেখ্য, এর আগে হাওড়ার শিবপুরের তৃণমূল বিধায়ক জটু লাহেড়ীর গলাতেও শোনা গিয়েছে তৃণমূলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের সমালোচনা। ফলে হাওড়া জেলাতে তৃণমূলের নড়বড়ে ছবিটা বড্ড চোখে লাগছে।

এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে চলতি মাসে অমিত শাহের হাওড়া সফরে কি চওড়া হয়ে উঠবে হাওড়ার মাটিতে তৃণমূলের ভাঙ্গন? ইতিপূর্বে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ (Soumitra Khan) সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন, হাওড়ায় তৃণমূল থেকে রায় কিংবা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যে কেউ একজন বিজেপিতে আসবেন। তাহলে কি সৌমিত্র খাঁর কথাই সত্যি হতে চলেছে? এদিকে লক্ষীরতন শুক্লা মন্ত্রীত্ব ছাড়ার পর পরই হাওড়ার বালি কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে মন্তব্য করেন, তৃণমূলে উইপোকা লেগে গিয়েছে। উপরে সাজানো থাকলেও ভিতরে কুরে কুরে সব সাফ করে দিচ্ছে। বৈশালীর এই মন্তব্য স্বাভাবিকভাবেই গুঞ্জনের মাত্রাকে উর্ধমুখী করেছে। সব মিলিয়ে এখন রাজনৈতিক মহলের নজরে হাওড়া।