তিনি “মহারাজ”, রাজত্ব করতেই তিনি এসেছেন

।। প্রথম কলকাতা ।।

অস্বীকার করার জায়গা নেই মোটে ২০০০ সালের পর দলকে গড়ে পিঠে তুলেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়িয়ে সবাইকে সুযোগ দিয়েছিলেন তিনিই, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এমন একটা সময় ব্যাট ধরেছিলেন যখন টিম ইন্ডিয়ার টালমাটাল অবস্থা আবার যেমন ধরুন পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব দেওয়া , অস্ট্রেলিয়া টিমের সাথে টক্কর দেওয়া এসবই হাতে ধরে শিখিয়েছেন টিম ইন্ডিয়াকে “প্রিন্স অফ ক্যালকাটা”। বিতর্ক তাঁকে ঘিরেও তৈরী হতো একসময় তবে সেসব বিতর্ক ধপে টেকেনি, বিতর্ক ভুলে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে আপন করেছে আম বাঙালি, বারেবারে।

১৯৯৬ সাল থেকে ইংল্যান্ড সিরিজ দিয়েই তাঁর পথ চলা শুরু। একটা ব্যক্তিত্ব যার মধ্যে এমন কিছু তো নিশ্চয়ই যাকগে যে কারণে ক্রিকেটাররাও হিসেব আত্মপ্রকাশ থেকে মহারাজ হয়ে ওঠা, সিএবি প্রেসিডেন্ট, বিসিসিআইয়ের শীর্ষপদ তিঁনিই অলংকৃত করতে পেরেছেন।

ব্রিটিশ ক্রিকেট দলের বিরুদ্ধে লর্ডসে দ্বিতীয় ম্যাচে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে যখন সুযোগ দেওয়া হলো তখন ভারতের অধিনায়ক ছিলেন মোহম্মদ আজহারউদ্দিন কোচ ছিলেন সন্দীপ পাতিল। ৩ নম্বর ব্যাট ধরেছিলেন সৌরভ এবং করেছিলেন শতরান। সময় যত এগিয়েছে মহারাজ প্রমাণ করে দিয়েছেন তিঁনিই রাজত্ব করতেই এসেছেন, লর্ডসে যখন সৌরভ শতরান করেছেন তখন তাঁর বয়স ছিল ২৪, শতরান টা এসেছিলো ১৯৯৬ এর ৮ জুলাই. ২০০০ সালে৮ ই জুলাই মহারাজ ভারতীয় দলের অধিনায়ক, ২০১৬ সালের ৮ জুলাই সিএবি প্রেসিডেন্ট, ২০২০ বিসিসিআইয়ের শীর্ষপদ। বাইশ গজের দুনিয়ায় তিনি সেরা।।

ব্যাট হাতে বাঙালির নায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ময়দানে নামছেন যে যেখানে যেমন অবস্থায় আছেন চিৎকার করে উঠছেন উল্লাসে ! গ্যালারি ভর্তি দর্শক উত্তেজিত !ময়দান কাঁপিয়ে আত্মবিশ্বাসের সাথে নিজের সেরা টা দিয়ে ময়দান ছাড়ছেন মহারাজ মুহুর্মুহু পরছে হাততালি !!!!…….. সেই স্মৃতি মনে করে 48 তম জন্মদিনে মহারাজকে স্যালুট !!!!