Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রাজ্যপাল বিজেপির মুখপাত্রের মত আচরণ করছেন: পার্থ

।। প্রথম কলকাতা ।।

রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় বৃহস্পতিবার দিল্লিতে গিয়ে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে। বৈঠকের পর তিনি সাংবাদিকদের সামনে রাজ্য প্রশাসনকে তীব্র আক্রমণ করেছেন। যে ভাষায় তিনি তৃণমূল সরকারকে নিশানা করেছেন তা নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে তৃণমূলে। বিষয়টি নিয়ে পাল্টা রাজ্যপালকে তোপ দেখেছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন,’  যে কথাগুলি বিজেপির রাজ্য সভাপতির কাছ থেকে শুনতে আমরা অভ্যস্ত তা শোনা যাচ্ছে রাজ্যপালের মুখ থেকে। রাজ্যপাল বিজেপির মুখপাত্রের মত আচরণ করছেন। রাজ্যপাল পদের একটা গরিমা আছে। সেই পদকে অসম্মান করছেন তিনি’।

রাজ্যপাল পশ্চিমবঙ্গের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে সরব হয়েছেন। সেই বিষয়ে এদিন পার্থ বাবু বলেন,’ দিল্লি থেকে উত্তর প্রদেশ বেশি দূরে নয়। ওখানে হাথরসে চরম নারকীয় নারী নির্যাতনের মতো ঘটনা ঘটেছে। দলিত সম্প্রদায়ের ওপর অত্যাচার চলছে। সেগুলো নিয়ে তো তিনি সরব হচ্ছেন না কেন? বাংলায় শান্তির পরিস্থিতি রয়েছে। তা সত্ত্বেও তিনি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এমন মন্তব্য করে করছেন। কার্যত তিনি বিজেপির মুখপাত্রের মতো কথা বলছেন’ । একইভাবে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তিনি জগদীপ ধনকড়কে নিশানা করে বলেন, ‘ আমি তাঁর মুখে এমন কথা শুনে স্তম্ভিত হয়ে গিয়েছি। রাজ্যপালের পদে থেকে কীভাবে তিনি এমন কথা বললেন! বিজেপি শাসিত নানা রাজ্যে যখন নানা অন্যায়, দুর্নীতি, অবিচারের ঘটনা ঘটছে সেগুলো দেখে তিনি চুপ থাকেন। অথচ বাংলায় শান্তির পরিবেশ থাকা সত্ত্বেও তিনি এমনভাবে মন্তব্য করছেন যাতে পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে তিনি বিজেপির হয়ে কথা বলতে এখানে এসেছেন’।

আরও পড়ুন: ফ্রান্সের গীর্জায় ৩ জন খুন: মহিলার শিরশ্ছেদ

এদিকে কংগ্রেস এবং সিপিএমও রাজ্যপালের পাশাপাশি তীব্র সমালোচনা করেছে শাসক দল তৃণমূলের। কংগ্রেস সাংসদ তথা লোকসভার দলনেতা অধীর চৌধুরী বলেন,’ রাজ্যপাল বিজেপির সুরে সুর মিলিয়ে এমন কথা যে বলছেন তাতে কোনও সন্দেহ নেই। এর তীব্র প্রতিবাদ করছি। সেই সঙ্গে এটাও বলতে হবে তৃণমূল কেন বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হচ্ছে না। কেন দিল্লিতে গিয়ে তৃণমূল সাংসদেরা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছেন না। তৃণমূল বাংলায় বাঘ আর দিল্লিতে গিয়ে ইঁদুর হয়ে যায়। এটা দেখলেও আমাদের খারাপ লাগে’ । সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী বিজেপি ও তৃণমূলের একযোগে সমালোচনা করেছেন। তাঁর কথায়, অতীতে তৃণমূলও রাজ্যপালকে ব্যবহার করতে চেয়েছে। তখনও আমরা তার সমালোচনা করেছিলাম। এখনও তাই করছি। কারণ বামপন্থীরা একটা নীতির উপর দাঁড়িয়ে রাজনীতি করে। বিজেপি ও তৃণমূল দুজনেই সমান, তারা এমনটাতেই অভ্যস্ত।