গালওয়ান সংঘর্ষ “দুর্ভাগ্যজনক” : চিনা রাষ্ট্রদূত

1 min read


।।প্রথম কলকাতা।।

গালওয়ান সংঘর্ষকে “দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা” বললেন, ভারতে চিনের রাষ্ট্রদূত সান উইইডঙ্গ। তিনি বলেন, “ইতিহাসের প্রেক্ষিতে এটি স্বল্পস্থায়ী মুহূর্ত”। এই সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সৈনিক শহিদ হয়েছিলেন।
চিন-ভারত যুব ওয়েবিনারে কথা বলতে গিয়ে চিনা রাষ্ট্রদূত বলেন, “খুব বেশিদিন হয়নি, সীমান্তে একটি দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ঘটেছে, যা চিন বা ভারত কেউই চায় না। এখন আমরা এটাকে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে কাজ করছি।“

সান বলেন, “ভারত ও চিনের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক ৭০ বছর আগে স্থাপিত হয়েছিল। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে গেছে ও আরও স্থিতিস্থাপক হয়েছে। একটি সময়ে কোনও একটি ঘটনায় তা বিঘ্নিত হওয়া উচিত নয়। নতুন শতকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক পেছোনোর বদলে আরও এগিয়ে যাওয়া উচিত।“

“চিন ভারতকে প্রতিদ্বন্দ্বী নয়, সাথী হিসেবে দেখে। হুমকি নয়, সুযোগ হিসেবে দেখে। আমরা সীমান্ত প্রশ্নকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের মধ্যে একটি উপযুক্ত স্থানে রাখতে চাই। আলোচনা ও পরামর্শের মাধ্যমে মতপার্থক্যকে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে চাই। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ঠিক পথে ফিরিয়ে আনতে চাই। চিন ও ভারতের উচিত দ্বন্দ্ব এড়িয়ে শান্তিতে থাকা।“ বললেন রাষ্ট্রদূত।

তিনি আরও বলেন, “চিন ও ভারতের মধ্যে অর্থনৈতিক পরিপূরকতা খুবই শক্তিশালী। অনেক দিন ধরেই চিন ভারতের ব্যবসায়িক অংশীদার। ভারতও দক্ষিণ এশিয়ায় চিনের বৃহত্তম ব্যবসায়িক অংশীদার। চিন ও ভারতের অর্থনীতি পরষ্পরের ওপর নির্ভরশীল। ভারত ও চিনের বৃহত্ অর্থনীতি একে অপরকে আকর্ষণ করা উচিত, জোর করে তাদের আলাদা করার থেকে।“

প্রকৃতপ্রস্তাবে, গালওয়ান উপত্যকা, ফিঙ্গার এলাকা সহ কয়কটি এলাকায় চিনা সেনার সীমালঙ্ঘন নিয়ে ভারত ও চিনের মধ্যে অচলাবস্থা চলছে। দুপক্ষের মধ্যে গত ৩ মাসে কথা হয়েছে বেশ কয়েকবার। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও ফল মেলেনি।

ভারত কনফুসিয়াস ইন্সটিটিউটগুলির স্থানীয় শাখাগুলি ও ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলির সঙ্গে চুক্তি নিয়ে বিস্তৃতভাবে পূনর্মূল্যায়ন শুরু করার পরই চিনা দূতবাস থেকে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, স্বাভাবিক সহযোগিতাকে রাজনীতিকরণ করা থেকে বিরত থাকা উচিত এবং ভারত ও চিনের মানুষের স্বাস্থ্যকর ও স্থিতিশীল উন্নয়ন সাংস্কৃতিক আদান-প্রদান বজায় রাখা উচিত।