Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

জাবদাপোতা গ্রামে ভোটারদের জন্য গরমগরম ভাজা হচ্ছে ফুলকো লুচি, এটা ভোট উৎসব!


।। ময়ুখ বসু ।।


রাজ্যে তৃতীয় দফার ভোটে বলা যায় ঘটনার ঘনঘটা। এখানে প্রার্থীকে পেটানো হচ্ছে তো ওখানে এজেন্টকে জোর করে বুথ থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে। এখানে বোমাবাজি চলছে তো ওখানে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিয়ে সোচ্চার হচ্ছেন রাজনৈতিক নেতারা। এমনই নানা অভিযোগের মধ্যে দাঁড়িয়ে এদিন সকাল থেকে রাজ্যের ৩১ টি কেন্দ্রে চলছে ভোটগ্রহণ। দিকে দিকে একদিকে যেমন প্রার্থীরা আক্রান্ত হয়েছেন, তেমনি বিক্ষিপ্ত অশান্তি ছড়িয়ে পড়েছে বহু কেন্দ্রে।

শাসক আর বিরোধীদের অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগে এদিন সকাল থেকেই অশান্ত হয়ে উঠেছে বাংলার ভোটকেন্দ্রগুলি। এরই মধ্যে কিছুটা হলেও স্বস্তির ছবি। ভোটকে কেন্দ্র করে জগৎবল্লভপুরের জাবদাপোতা গ্রামে রীতিমতো ভোট উৎসবে মেতেছেন গ্রামবাসীরা। যেখানে ভোট ঘিরে রাজনৈতিক উত্তাপের ছবি উধাও।

বরং এখানে উৎসবের মেজাজে চলছে ভোটদান। ভোট উপলক্ষ্যে রীতিমতো ভুরিভোজ নিয়ে তুমুল ব্যস্ত এখানকার বাসিন্দারা। ভোট উপলক্ষে স্থানীয় তৃণমূল এবং বিজেপি উভয় পক্ষই মিলিতভাবে ভোটারদের জন্য ও তাদের পরিবারের জন্য নেমে পড়েছে খাবারের আয়োজনে। গ্রামের মহিলা এবং পুরুষরা একত্রিত হয়ে গরমগরম লুচি ভাজছেন। সঙ্গে তৈরি হচ্ছে কষা আলুরদম। এই কেন্দ্রের ভোটাররা ভোট দিতে যাওয়ার আগে কিংবা পরে নিজেদের দলের সমর্থকদের হেঁসেল থেকেই নিয়ে যাচ্ছেন গরমগরম লুচি ও আলুর দম।

অবশ্য এই ঘটনায় অভিযোগ উঠতেই পারে যে খাবার দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করা হচ্ছে। কিন্ত কে কার বিরুদ্ধে করবে অভিযোগ? কারোরই কোনও অভিযোগ নেই। দুই পক্ষই জানাল এটাই এই গ্রামের চিরাচরিত রীতি। যা চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। প্রতি ভোটেই এই গ্রামে এই ধরনের খাবারের আয়োজন করা হয়। আগে দেওয়া হত ছোলা ও মুড়ি আর এবারে দেওয়া হচ্ছে লুচি ও আলুরদম। আর ভোট উপলক্ষ্যে থালা ভরা লুচি ও আলুর দম পেয়ে খুশি সবাই।

এখানে রীতিমতো উৎসবের মেজাজে হই হই করেই পালন হচ্ছে ভোট উৎসব। ভোটের উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ে এখানে কারো মাথাব্যাথা নেই। ভোটারদের কথায়, আমার ভোট আমি দেবো, যাকে খুশী তাকে দেবো। ভোট দেওয়া নিয়ে আমাদের এখানে কোনও রাজনৈতিক দলাদলি নেই। নেই রাজনৈতিক হিংসাও। আর ভোট নিয়ে এমন সম্প্রীতির ছবি স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা হলেও স্বস্তির আশা জুগিয়ে দিলো বাংলার মাটিতে।