Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

তারামায়ের মন্দিরের উদ্বোধন থেকে সনাতন ঐতিহ্য ও সম্প্রীতির বার্তা শুভেন্দু অধিকারীর

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

বাঙালির কাছে তারা মায়ের দর্শন একটা আলাদা অনুভূতি। তবে ইচ্ছে থাকলেও সব সময় সম্ভব হয়না তারাপীঠে গিয়ে তারামায়ের দর্শন করা। কিন্তু এবার তাদের হাতের কাছেই তারা মায়ের দর্শন করার সুযোগ পেয়ে গেলেন পূর্ব মেদিনীপুরবাসী। পাঁশকুড়ার, মাইসোরা গ্রাম পঞ্চায়েতের চকগোপাল অন্চলে দ্বিতীয় তারাপীঠ মন্দিরের উদ্বোধন হল আজ। মন্দির উদ্বোধন করলেন শুভেন্দু অধিকারী। মন্দির উদ্বোধন উপলক্ষ্যে রাস্তায় মানুষজনের উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মত। ফুল দিয়ে শুভেন্দু অধিকারীকে (Subhendu Adhikari) অভ্যর্থনা জানান উৎসুখ মানুষজন।

মন্দিরে ঢোকার আগে স্বামী বিবেকানন্দর মূর্তিতে মাল্যদান করে এরপর মন্দিরে প্রবেশ করে তারা মায়ের সামনে আরতি করেন শুভেন্দু অধিকারী। প্রায় ৬ একর জমির উপর ৯০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট এই তারামায়ের মন্দির। দেবীদর্শন করতে গেলে ৫১ টি সিঁড়ি ভেঙে উঠতে হবে সকলকেই। মাঠের মধ্যে দৃষ্টিনন্দন পরিবেশে চকগোপাল গ্রামের বেশকিছু মানুষের বিশেষ আর্থিক সহায়তা সহ পার্শ্ববর্তী বেশকয়েকটি গ্রামের মানুষের বিশেষ সহযোগিতায় কয়েক কোটি টাকা খরচ করে তৈরী হয়েছে তারাপীঠের আদলে তৈরি এই তারামায়ের মন্দির। এদিন তারামায়ের এই মন্দির উদ্বোধনের পাশাপাশি মাইসোরায় নিহত তৃণমূল নেতা কুরবান শা-র দাদা আফজাল শা-র সঙ্গে দেখা করেন শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari)।

আরো পড়ুন :এবার রাজনীতি ছাড়ার হুমকি উদয়ন গুহ-র গলায়

সেখান থেকে শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari) বলেন, ‘ভারতবর্ষের সংস্কৃতি ঐতিহ্যকে মেনে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কাজ করছেন। দেশের হারিয়ে যাওয়া অনেক ঐতিহ্যকে তিনি ফিরিয়ে এনেছেন।’ রাম মন্দিরের নির্মাণ কাজের সূচনার উদাহরণ টেনে এই কথা বলেন শুভেন্দু অধিকারী। পাশাপাশি অন্য জায়গায় মুসলিমদের জন্যও ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ‘এই সনাতনী ঐতিহ্য যত বেশি করে ছড়িয়ে পড়বে মানুষের মধ্যে হিংসা দ্বেষ ঘৃণা তত অবলুপ্ত হবে।’ বলেও মন্তব্য করেন শুভেন্দু অধিকারী (Shubhendu Adhikari)।