Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

লক্ষ্মীরতন শুক্লার ইস্তফা নিয়ে রাজনৈতিক মহলের কার কী প্রতিক্রিয়া জানুন

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

মন্ত্রিত্ব সহ তৃণমূল কংগ্রেসের সব পদ থেকে ইস্তফা দিলেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা। এত দিন রাজ্যের ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলেছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা ( Lakshmiratan Shukla)।সামনে বিধানসভার নির্বাচন তার ঠিক আগেই লক্ষীর মন্ত্রিত্ব ছাড়া নিয়ে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। লক্ষ্মীরতন শুক্লা ইস্তফা দেওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন দলের নেতা-নেত্রীরা তাদের প্রতিক্রিয়া দিতে শুরু করেছেন। রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায় লক্ষ্মীরতন শুক্লার পদত্যাগ নিয়ে জানিয়েছেন ভোটের আগে দলের সেনাপতির দায়িত্বে থেকে কেউ যদি চলে যায় তাহলে সেটা যুদ্ধক্ষেত্র থেকে সরে যাওয়ার মতো ঘটনা।

তবে তিনি জানিয়েছেন নতুন সৈনিক চলে আসবে। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী (Adhir Ranjan Chowdhury) জানিয়েছেন দিদির দলের শেষ যাত্রা শুরু। তবে সব নেতাকর্মীদের বলছি যারা তৃণমূলে আর থাকতে পারছেন না আবার বিজেপিতে যাবেন না কংগ্রেসের দরজা খোলা আছে। জয়প্রকাশ মজুমদার জানিয়েছেন তৃণমূলে আর কেউ থাকবে না। বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য (Shamik Bhattacharya) জানিয়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা কে বিজেপিতে স্বাগত।পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেসকে বিঁধে শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের মতাদর্শ হীন দল।

আরো পড়ুন :স্বাস্থ্যসাথী পুরো ফেক, কটাক্ষ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের

তৃণমূল সাংসদ সৌগত জানিয়েছেন লক্ষ্মীর পদত্যাগ খুব দুঃখজনক। ওর সাথে আমার কখনও সমস্যার কথা হয়নি। বৈশাখী ডালমিয়া জানিয়েছেন আমাদের দলের মধ্যেই অপমানিত হতে হচ্ছে।দলের মধ্যে কিছু লোক রয়েছে যারা কাজ করতে দিচ্ছে না। উইপোকার মত ক্ষতি করে চলেছে। আশাকরি দল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জন্য দলটা হ্যাম্পার হচ্ছে। কাল থেকে লক্ষ্মী কে নিয়ে লেখা হবে বলা হবে বেইমান। অথচ যারা দলের ক্ষতি করছেন তারা বেইমান নন এমনই প্রশ্ন তোলেন তিনি । রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এই বিষয়ে জানিয়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা কেন ইস্তফা দিলেন জানিনা এটা তাঁর সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। তৃণমূল নেতা কুনাল ঘোষ জানিয়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা ক্রীড়াজগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র। দল তাকে বিধায়ক পদ দিয়েছিল মর্যাদা দিয়েছিল ।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) চেষ্টা করেছেন শুধু রাজনীতি নয় অন্যান্য পেশার মানুষকে রাজনীতিতে নিয়ে এসে দায়িত্ব দিয়েছিলেন। তারা ভালো কাজও করেছেন। বিজেপির দেউলিয়া দশা। তাই তারা অন্য দলের দিকে নজর দিচ্ছেন। ২২৫ এর বেশি আসন নিয়ে তৃণমূল আবার ও বাংলায় ক্ষমতায় আসবে জানায় কুনাল ঘোষ (Kunal Ghosh)। বিজেপি (bjp) রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন খুব ভালো খবর। আমাদের ওপর আক্রমণ করতে গিয়ে নিজেদের লোক হারিয়ে ফেলছে তৃণমূল কংগ্রেস। আমি বলেছিলাম ডিসেম্বর মাস থেকেই ভাঙ্গন শুরু হবে।তা শুরু হয়ে গিয়েছে। তৃণমূলের রোজ উইকেট পড়ছে। তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবসে ও তাদের পার্টি ভেঙেছে। বাবুল সুপ্রিয় ও লক্ষ্মীরতন শুক্লা কে তাদের দলে স্বাগত জানিয়েছেন।