Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

অবশেষে দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত বিদ্রোহী বিধায়কের

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

৩ অক্টোবর থেকে চলা নাটকের যবনিকা পতন হল বলা যেতেই পারে। অবশেষে, সামাজিক মাধ্যমকে ব্যবহার করে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিদ্রোহী তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামী। সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টের পরই মিহির গোস্বামীর বাড়ি পৌঁছে যান সাংবাদিকরা। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এদিন মিহির বাবু স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করার সিদ্ধান্ত তিনি নিয়ে ফেলেছেন।

তিনি বলেন, গণতান্ত্রিক উপায়ে সাধারন মানুষের জন্য কাজ করতে হলে যে কোন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত থাকা একান্ত আবশ্যক। তাই অন্য রাজনৈতিক দলে যোগদান করবেন বলেও মনস্থির করে ফেলেছেন বলেও জানান মিহির গোস্বামী। তবে, এরপরও নির্দিষ্ট কোন রাজনৈতিক দলে তিনি যোগ দেবেন, তা স্পষ্ট করেননি মিহিরবাবু। কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূলের বিদ্রোহী বিধায়ক মিহির গোস্বামী বিজেপিতে যোগদান করছেন কিনা? এই প্রসঙ্গে বিজেপি কোচবিহার জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা বলেন, আর কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হবে।

প্রসঙ্গত, সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে মিহির গোস্বামী লেখেন, গত ৩ অক্টোবর ২০২০ তারিখে তৃণমূল কংগ্রেসের যাবতীয় সাংগঠনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে তিনি জানিয়েছিলেন যে, দলনেত্রীর নির্দেশ পেলে তিনি বিধায়ক পদ থেকেও ইস্তফা দিতে পারেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় আরও লেখেন যে, তারপর থেকে প্রায় দুমাস হতে চলল একাধারে তিনি নিজের বিবেকের সঙ্গে ও নিজের যুক্তিবোধের সঙ্গে চিন্তন-মন্থন করেছেন তেমনই তার নিজের ভাবনাকে মানুষের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত শেয়ারও করেছেন তিনি।

আরো পড়ুন : অভিশপ্ত ২৬/১১ তেই বামেদের ধর্মঘট ঘিরে উঠছে প্রশ্ন

যে সব মানুষ তার ভাবনাকে যুক্তিযুক্ত ভেবে স্বাগত জানিয়েছেন তাদের উদ্দ্যেশেই তিনি আবার বলছেন, গত দশ বছর যে তৃণমূল দলের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে দলের মধ্যে বারবার অবহেলিত ও অপমানিত হয়েছেন, দলের রাজ্য নেতৃত্ব তাতে নীরব ও প্রচ্ছন্ন মদত যুগিয়ে গিয়েছেন, দলনেত্রীকে সে কথা বারংবার জানিয়েও পরিস্থিতির ইতরবিশেষ হয়নি।

আজ সব সহ্যের সীমা অতিক্রম করার সময় অনুভব করছেন তিনি বলেও জানান মিহির বাবু। তিনি পোস্টে লেখেন, বাইশ বছর আগে যে দলটির সঙ্গে তিনি যোগ দিয়েছিলেন, আজকের তৃণমূল সেই দল নয়। এই দলে তার জায়গা নেই। তাই আজ এই তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে তার যাবতীয় সম্পর্ক ছিন্ন করতে চান তিনি। তিনি আশা করেন, তার দীর্ঘদিনের সাথী বন্ধু ও শুভানুধ্যায়ীরা তাকে মার্জ্জনা করবেন।

এই প্রসঙ্গে কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পার্থপ্রতিম রায় বলেন মিহির গোস্বামী তৃণমূল কংগ্রেসের জেতা বিধায়ক তাই তিনি যতক্ষণ বিধায়ক ততক্ষণ তিনি দলেই আছেন। বিজেপিতে মিহিরবাবুর যাওয়ার প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করা হলে পার্থপ্রতিম রায় বলেন তাদের কাছে এ ধরনের কোন খবর নেই। স্বভাবতই বিধানসভা নির্বাচনের আগে নতুন করে যে রাজনৈতিক সমীকরণ তৈরি হচ্ছে কোচবিহার জেলায় তা বলাই বাহুল্য।