Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ডিমেই কেল্লা ফতে!

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।। কলকাতা ।।

সাধ্যের মধ্যে পুষ্টিকর খাবারের মধ্যে প্রথমেই চলে আসে ডিমের নাম। আট থেকে আশি ভোজনরসিকদের খাবারের তালিকায় প্রথমেই থাকে ডিমের নাম। চটজলদি খাবারের তালিকাতেও প্রথম সারিতে নাম থাকে ডিমের। অমলেট হোক বা এগ রোল পছন্দ করেনা এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবেনা।

আর এই দুর্গা পুজোর সময় এগরোল খেতে খেতে প্যান্ডেল হপিং-এর তো মজাই আলাদা। যদিও এবছরটা করোনা অতিমারির কারনে এগরোল খেতে খেতে পুজো দেখা হোক না টিভির পর্দায় চোখ রেখে। এখনও এমন অনেক মানুষ রয়েছেন যারা সারা দিনে একটি ডিম সেদ্ধ, অল্প একটু ভাত বা রুটি খেয়ে দিন কাটান।

স্বাদ, পুষ্টি ও সুষম আহারের ক্ষেত্রে প্রথমেই আসে ডিমের নাম। আগে অনেকেই মনে করতেন যে, ডিম খেলেই মোটা হয়, ওজনও বেড়ে যায়। অন্যদিকে বলা হত যে, ডিমের কুসুমে কোলেস্টেরল বাড়ে। তাই ডিমের কুসুম না খাওয়ার কথাও বলা হত।

কিন্তু আধুনিক গবেষণা প্রমাণ করেছে যে, এই ধারণার কোনও ভিত্তি সেইভাবে নেই। বরং এখনকার দিনে বলা হয় যে, ডিমের কুসুম খারাপ কোলেস্টেরলকে  অর্থাৎ এলডিএল-কে কমিয়ে ভালো কোলেস্টেরল অর্থাৎ এইচডিএল-কে বাড়াতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ এই পুজোয় শিশুকে শেখান মনবিকতা

ডিম কখন, কে, কীভাবে, খাচ্ছে, সেটার উপরই নির্ভর করে ডিমের গুরুত্ব। ডিম খেলে কখনওই ওজন বাড়ে না। মোটা হয়ে যাওয়ার সঙ্গেও ডিমের কোনও সম্পর্ক নেই বলেই মত পুষ্টিবিদ সোমা চক্রবর্তীর।

তার মতে, প্রত্যেক সুস্থ মানুষই রোজ একটি করে ডিম খেতে পারেন। হার্টের রোগীদেরও একটি করে ডিম দেওয়া যেতেই পারে বলেই মত সোমা চক্রবর্তীর। তবে একসঙ্গে একাধিক ডিম খেলে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনার পাশাপাশি হতে পারে বদহজমের সমস্যাও।

তবে, পুষ্টিবিদ সোমা চক্রবর্তীর মতে, জলখাবারের সময় ডিম সেদ্ধ করে খাওয়াই ভালো। অন্যদিকে, অতিরিক্ত তেল মশলা দিয়ে রান্না করা ডিম খেলে হতে পারে বদহজম। বাড়তে পারে ওজনও।