ধোনি অবসরে, তাই খেলাই দেখবেন না পাকিস্তানের সেই ‘বশির চাচা’

1 min read

।। প্রথম কলকাতা, ঢাকা ডেস্ক ।।

পাকিস্তানের নাগরিক অথচ ধোনি অন্তঃপ্রাণ ভক্ত ‘বশির চাচা’। ধোনি অবসর নিয়েছেন, তাই তিনি আর ক্রিকেট খেলাই দেখবেন না কোনোদিন।

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানেই যেন বাড়তি উত্তাপ, বাড়তি উন্মাদনা। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে সব দর্শক ছাপিয়ে একজন হয়ে ওঠেন মূল আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। গ্যালারিতে তার উপস্থিতি থাকাটা অনেকটা বাধ্যতামূলক। টিভি ক্যামেরাও বারবার গিয়ে পড়ে তার চেহারার দিকে। তিনি বশির চাচা।

পাকিস্তানের সমর্থক হলেও ভারতের মহেন্দ্র সিং ধোনির অনেক বড় ভক্ত। সেই বশির চাচা শোকে আচ্ছন্ন। কিন্তু এ শোকের কারণ কি হতে পারে? কারণ একটাই-প্রিয় ক্রিকেটার মাহেন্দ্র সিং ধোনির অবসর। ধোনি অবসর নিয়েছেন বলে তিনি আর ক্রিকেটই দেখবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন!

জন্মসূত্রে তিনি পাকিস্তানি। শিকাগোতে রেস্তোরাঁ ব্যবসা করেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সদ্য ‘সাবেক’ হওয়া ভারতের সাবেক অধিনায়ককে ভালোবেসে পাক-ভারত ম্যাচ দেখতে ছুটে যেতেন বিভিন্ন দেশে।

গেল শনিবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ধোনি। এরপরই এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নেন বশির চাচা। ধোনি নেই, তাই দেশ-বিদেশ ঘুরে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখার কোনো অর্থও নেই তার কাছে।

বশির চাচা বলেন, ধোনি অবসর নিয়েছেন সঙ্গে আমিও নিলাম। তবে মহামারি করোনাভাইরাস স্বাভাবিক হলে ধোনির বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করতে চান তিনি, ধোনি অবসরে গেছে তাই আমিও ম্যাচ দেখা থেকে অবসর ঘোষণা করলাম।

তিনি আরও বলেন, প্রত্যেক ক্রিকেটারেরই অবসরের সময় আসে; কিন্তু ধোনির অবসরের ঘোষণা আমাকে ভীষণ কষ্ট দিচ্ছে। একইসঙ্গে পুরনো অনেক কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। ধোনির জমকালো বিদায়ী সংবর্ধনা পাওয়া উচিত ছিল।

যদিও জন্মসূত্রে পাকিস্তানি তবুও বশির চাচার সঙ্গে ধোনির বন্ধুত্ব ছিল সবারই জানা। যা প্রকাশ্যে আসে ২০১১ বিশ্বকাপের সময়। পাকিস্তান গ্যালারি থেকে ধোনির নামে জয়ধ্বনি করার জন্য তাকে বিদ্রূপের শিকারও হতে হয়েছে। কিন্তু ২০১১ মোহালিতে পাক-ভারত সেমিফাইনালের টিকিট থেকে বঞ্চিত হয়েছিলেন চাচা। পরে ধোনির কাছে খবর যাওয়ার পর তিনি চাচাকে সেমিফাইনালের টিকিট জোগাড় করে দিয়েছিলেন।

পিসি/