Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

অমিত শাহের ছেলের বিয়েতে ঢুকে বলবো রাম নাম সত্য হে ,দেবাংশুর পোস্ট ঘিরে কমেন্টসের ছড়াছড়ি

1 min read

।। সুদীপা সরকার ।।

জয় শ্রীরাম স্লোগান নিয়ে এখন বিতর্ক তুঙ্গে। গতকাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী( Narendra Modi ) এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়( Mamta Banerjee ) একই মঞ্চে বসে থাকেন ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানে।অনুষ্ঠান বেশ ভালো ভাবেই চলছিল কিন্তু যখন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বক্তৃতা রাখতে ওঠেন তখন দর্শক থেকে জয় শ্রীরাম স্লোগান উঠতে থাকে। তারপরই ছন্দপতন ঘটে। মুখ্যমন্ত্রী ক্ষুব্দ হয়ে কোন বক্তব্য রাখেন না। এই নিয়ে এখন উত্তাল বঙ্গ রাজনীতি। বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে রাম কে স্মরণ করে কেউ জয় শ্রীরাম বলতেই পারেন।কিন্তু তৃণমূলের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে সরকারি অনুষ্ঠানে কেন ভারতীয় জনতা পার্টির স্লোগান জয় শ্রীরাম উঠে আসবে।

এ বিষয়ে বিভিন্ন দলের নেতা-নেত্রীরা তাদের মতামত পেশ করছেন। সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ এই বিষয়ে মুখ খুলছেন।অনেকেই মনে করছেন এতে বাংলার মানুষের অপমান করা হয়েছে নেতাজি কে অসম্মান করা হয়েছে। বিভিন্ন তৃণমূলের নেতা নেত্রীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় একটার পর একটা পোস্ট করে চলেছেন। এবার দেবাংশু ভট্টাচার্য (devanshu Bhattacharjee ) তাঁর ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট করেছেন। পোস্ট টিতে লেখা আছে রামের নাম নেওয়ার ক্ষেত্রে নাকি স্থান কাল পাত্র বিবেচ্য নয়! তাহলে এটা তো করাই যায় কি বলেন ? আমি অমিত শাহের ছেলের বিয়েতে ঢুকে বলবো “রাম নাম সত্য হ্যায়”শ্রী রামের নাম; আশাকরি আপত্তি থাকবেনা।

রামের নাম নেওয়ার ক্ষেত্রে নাকি স্থান-কাল-পাত্র বিবেচ্য নয়! তাহলে এটা তো করাই যায়, কি বলেন ? #DebangshuBhattacharya

Posted by Debangshu Bhattacharya on Sunday, 24 January 2021

ব্যাস তারপরই পড়তে শুরু করেছে একটার পর একটা কমেন্টস। মজার ছলে কেউ লিখেছেন আগে তো নিমন্ত্রণ পাও কিনা দেখো। তারপর বলো। আবার কেউ লিখেছেন ঠিক দাদা ইটের জবাব পাটকেল। আবার কেউ প্রশংসা করেছেন দেবাংশু র। একজন লিখেছেন তোমায় যত দেখছি অবাক হচ্ছি। একদিন অনেক বড় নেতা হবে তুমি। আবার একজন লিখেছেন যে ঘটনা ঘটেছে সেটা সত্যিই বাঙালীদের জন্য লজ্জার এবং দুঃখের ব্যাপার কারণ তিনি রাজনৈতিক দলের হয়ে যায়নি তিনি বাঙালির মুখ্যমন্ত্রী হয়ে উপস্থিত ছিলেন।জয় শ্রীরাম বলতেই পারে একশোবার বলুক কিন্তু সেটা ধার্মিক অনুষ্ঠানে বলুক কিন্তু এরকম বিভেদ সৃষ্টি করে ভেদাভেদ করতে ভগবান রাম শেখায়নি তাদের লজ্জা লাগার দরকার এটা গোটা বাঙালী লজ্জার ব্যাপার।

আবার একজন লিখেছেন আমি হিন্দু তাই গর্ব করে বলব জয় শ্রীরাম। কিন্তু কাউকে কটাক্ষ করে বলাটা বা সরকারি কর্মসূচিগুলোতে it’s very harmful for our constitutional methods। সোজা কথা এই ব্যবহার নিজের ধর্ম বিরুদ্ধ বলে মনে হয়। আবার একজন লিখেছেন বাঙালি হলে নেতাজির নামে জয়ধ্বনী দিত অবাঙালি তাই নেতাজির নাম মুখে আসেনি। আবার কেউ লিখেছেন রামের নামে এত অসুবিধা কোথায়? একজন তো কটাক্ষ করে লিখেছেন এবার থেকে বিজেপির মিটিং মিছিল হলে আমরাও চিৎকার করে বলব বল হরি হরি বল।