কোচবিহারে বড়দেবীর আরাধনায় সরকারি স্বাস্থ্যবিধির নজরদারি

।। প্রথম কলকাতা ।।

মহাঅষ্টমীর সকালে কোচবিহারের বড়দেবী। রাজ ঐতিহ্য মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মানুষের ঢল সকাল থেকেই। কোচবিহার জেলা প্রশাসন পুলিশ প্রশাসন রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্যবিধিকে মান্যতা দিয়ে সকাল থেকেই তৎপর মানুষকে সুষ্ঠুভাবে অঞ্জলি সম্পন্ন করাতে। পরিবারের রীতি অনুযায়ী অষ্টমীর দিন বলির ব্যবস্থা রয়েছে এই বড় দেবীর মন্দিরে।

তাই যারা বলি দিতে আসছেন তাদের ও নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে তারা দেবীর আরাধনায় ব্রত হচ্ছেন। তারা মানত করে পায়রা নিয়ে এসেছেন দেবোত্তর ট্রাস্টের কর্মীরা তাদের সেই মানুষের পায়রা দেবীর সামনে ছেড়ে দিচ্ছেন। অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে পূজিত হচ্ছে এই বড়দেবী।

আরো পড়ুনঃ করোনার ভয় কাটিয়ে নবদ্বীপে সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে দুর্গাপুজো

তবে পুলিশের নিরাপত্তার ঘেরাটোপে সম্পন্ন হচ্ছে পুজো। করোনা বিধির নড়চড় যাতে না হয় এবং সাধারন মানুষ নিয়ম মেনে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করতে পারেন, তার জন্য মন্দিরের ভেতরে রাখা হয়েছে সশস্ত্র পুলিশ কর্মীদের। প্রত্যেকেই মুখে মাস্ক পরে পুজোর কাজ করে চলেছেন। উপস্থিত দর্শনার্থীদের নির্দিষ্ট দুরত্ব থেকে পুজোর বিধি দর্শন করার সুযোগ মিলছে, তবে যাতে জমায়েত না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখছে পুলিশ প্রশাসন।

পুজোর বিধি পালন করছেন যেসব পুজারিরা, তাদেরকে শিল্ড পরিহিত অবস্থায় দেখা গিয়েছে। পুজোর ফুল ঝুড়িতে করে নেওয়ার সময়েও যথাযথ দুরত্ব থেকেই ফুল গ্রহন করছেন তারা। এছাড়াও মন্ডপ প্রাঙ্গন থেকে করানো বিধির লিফলেট এবং স্যানিটাইজার বিনামূল্যে প্রদান করা হয় উপস্থিত দর্শকদের। অঞ্জলি দেওয়ার প্রসঙ্গে এক দর্শনার্থী জানান, প্রতি বছর ভিড়ের মধ্যে ভালোভাবে অঞ্জলী দেওয়া সম্ভব হয় না, কিন্তু এই বছর নিয়মের কড়াকড়িতে ভালোভাবে সেটা সম্ভব হয়েছে।

Categories