ট্রায়াল সম্পূর্ণ হওয়ার আগেই কত জনকে কোভিড টিকা দিল চীন!

1 min read

।। সুদীপ মান্না ।।

প্রথমে সরকারি কর্মচারিদের দেওয়া হল ডোজ। তারপর সরকারি আধিকারিকদের ও টিকা সংস্থার কর্মচারি। এরপর শিক্ষক, সুপারমার্কেট কর্মচারি ও বিদেশে যাচ্ছে এমন মানুষদের।

এখনও বিশ্বে কোনও প্রমাণিত কোভিড-১৯ টিকা আসেনি। তাতেও ট্রায়ালের প্রক্রিয়ার বাইরে থাকা কয়েক হাজার মানুষের টিকাকরণে বিরত থাকেনি চীনা আধিকারিকরা। তিনটি প্রার্থী টিকা দেওয়া হল সেইসব কর্মীদের, যাদের দেওয়া জরুরি বলে মনে করেছে চীন। তাদের মধ্যে রয়েছে স্বয়ং ওষুধ সংস্থার কর্মচারিরা।

আরও মানুষকে টিকা দেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করছেন আধিকারিকরা।

চীনের এই তাড়াহুড়ো বিশ্বের বিশেষজ্ঞদের অবাক করেছে। অন্য কোনও দেশই ট্রায়াল প্রক্রিয়ার বাইরে এত সংখ্যক মানুষকে টিকা দেয়নি। এই টিকা প্রার্থীগুলি তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে আছে, যা বেশিরভাগই চীনের বাইরে হচ্ছেদ্। ওই ট্রায়ালে থাকা মানুষদের কাছে থেকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। দেশের মধ্যে যাদের ওই টিকা দেওয়া হয়েছে, তাদের নজরে রেখেছে কি না চীন, তাও স্পষ্ট নয়।

এই অপ্রমাণিত টিকাগুলি থেকে ক্ষতিকর পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া হতে পারে। অকার্যকারী টিকা থেকে সতর্কতা এড়িয়ে মানুষ বেখেয়াল হলে আর ছড়াতে পারে সংক্রমণ।

যাদের চীন টিকা দিয়েছে, তাদের সঙ্গে গোপনীয়তার চুক্তি হয়েছে, যাতে তারা সংবাদ মাধ্যমকে কিছু না বলতে পারে।

সন্দেহ করা হচ্ছে, সংস্থাগুলির যে কর্মচারিদের টিকা দেওয়া হয়েছে, তারা প্রত্যাখ্যান করার জায়গায় ছিল না।

এখনও স্পষ্ট নয়, ঠিক কতজনকে টিকা দিয়েছে চীন। একটি চীনা সরকারি সংস্থা সিনোফার্ম জানিয়েছে, কয়েক হাজার মানুষকে শেষের পর্যায়ে থাকা টিকা দেওয়া হয়েছে। বেজিং ভিত্তিক একটি সংস্থা সিনোভ্যাক জানিয়েছে, বেজিংয়ে ১০ হাজারের বেশি মানুষকে তাদের তৈরি টিকা দেওয়া হয়েছে।