Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ছত্রধরেও কি স্বপ্নভঙ্গ ঘটবে তৃণমূলের!

।। ময়ুখ বসু ।।

ছত্রধরে জঙ্গলমহলে স্বপ্নভঙ্গ হবে না তো তৃণমূলের! বিস্ময়ের মনে হলেও এমন সম্ভাবনা এখন উঁকি দিতে আরম্ভ করেছে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের কাছে। জঙ্গলমহলকে দখলে রাখতে ছত্রধর মাহাতোকে রাজ্য কমিটিতে রেখে বিশেষ দায়িত্ব দিয়েছিলো তৃণমূল। চেয়েছিলো, ছত্রধর মাহাতোর প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে জঙ্গলমহলে তৃণমূলের সাম্রাজ্য ধরে রাখতে। কিন্ত তৃণমূলের প্রতিটি রাজনৈতিক কর্মকান্ডের দিকে বিজেপি যে কড়া নজর রাখছে তা স্পষ্ট।

তৃণমূলকে চাপে ফেলতে বিজেপি তাদের রণকৌশলের যে মুর্হু মুর্হু পরিবর্তন ঘটাচ্ছে তা বাংলার রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে বারবার উঠে আসছে। কীভাবে কোন সমীকরনে তৃণমূলের ক্ষমতাকে খর্ব করা যায় তার ছক করতে বিজেপি চেষ্টার কসুর রাখছে না। সেখানে দাঁড়িয়ে ছত্রধর জঙ্গলমহলের বুকে তৃণমূলের গুরু দায়িত্ব পেতেই কেন্দ্রীয় সংস্থা ছত্রধরকে জেরবার করতে শুরু করে।

আর স্বাভাবিকভাবেই ছত্রধরের আত্মপ্রত্যয়ে চিড় ধরতে শুরু করে সেখান থেকেই। এরপরেই বুদ্ধিমান ছত্রধর ধরি মাছ না ছুঁই পানি কায়দায় রাজনীতির অঙ্গনে পা ফেলা শুরু করেছেন বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ধারনা। সম্প্রতি ছত্রধর মাহাতোর সঙ্গে এক বিজেপি নেতার বৈঠক ঘিরে রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনার পারদ চড়তে শুরু করে দিয়েছে। তবে কি ছত্রধরেও আশা ভঙ্গ হতে চলেছে তৃণমূলের? উঠছে সেই সম্ভাবনাও।

আরো পড়ুন :উত্তরবঙ্গে এবারেও তৃণমূল পাবে বিগ জিরো, হুংকার অমিত মালব্যের

জানা যাচ্ছে, জঙ্গলমহলের ঝাড়গ্রামের ওবিসি মোর্চার জেলা সম্পাদক পশুপতি দেব সিংহের সঙ্গে এক মঞ্চে দেখা গিয়েছে ছত্রধরকে। এই পশুপতি দেব সিংহ শালবনি বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপির সামাজিক সম্পর্ক বজায় রাখার দায়িত্বও পালন করে চলেছেন। পরে স্থানীয় কুর্মি সংগঠনের এক নেতার বাড়িতে দীর্ঘ সময় ধরে রুদ্ধদ্বার আলোচনা চলে পশুপতি এবং ছত্রধরের মধ্যে।

তবে তারা কেউই জানাননি, তাদের মধ্যে কি আলোচনা হয়েছে। আর এই না জানা আলোচনা ঘিরেই জল্পনার পারদ চড়ছে। আসলে এই বৈঠকের আসল উদ্দেশ্য কি ছিলো? যা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা জল্পনা। তবে কি ছত্রধর গেরুয়া শিবিরের দিকে ঝুঁকছেন? তা না হলে তৃণমূলের ঘোর বিরোধী বিজেপি নেতার সঙ্গে কীসের বৈঠক হতে পারে ছত্রধরের? প্রশ্ন একটাই। উত্তরের সম্ভাবনা একাধিক।