চট্টগ্রামে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের মানববন্ধনে হামলায় ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

1 min read

।।চট্টগ্রাম ব্যুরো, বাংলাদেশ।।

চট্টগ্রাম জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড আয়োজিত মানববন্ধনে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় বাঁশখালির পৌর মেয়রসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

সোমবার(২৪ আগস্ট) রাত ৮টার দিকে নগরীর কোতয়ালী থানায় ২৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫০ থেকে ৬০ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফের স্বজন জহির উদ্দিন বাবর।এছাড়া মামলায় চট্টগ্রাম-১৬ আসনের সংসদ সদস্যের এপিএসকে-ও অভিযুক্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

গত ২৬ জুলাই বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী শহীদ মৌলভী সৈয়দের বড় ভাই মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফ মারা যান। মৃত্যুর পর তাকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দেয়া হয়নি।বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্যও দেন। এ নিয়ে মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর অনুসারীদের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের বিরোধ হয়।

মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য দেয়ার প্রতিবাদে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। কর্মসূচি চলাকালে হঠাৎ একদল তরুণ লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। আহত হন মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিকসহ ১২ জন। এরপর লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোজাফফর আহমদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধা মৌলভি সৈয়দকে মুক্তিযোদ্ধা বলে অস্বীকার করা এবং চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কোনো মুক্তিযুদ্ধ হয়নি- বাঁশখালীর সংসদ সদস্যের সাম্প্রতিক এমন বক্তব্যের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। কয়েকটি গাড়ি নিয়ে লোকজন এসে তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা সবাই বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমানের অনুসারী। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধাসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

হামলার ঘটনায় আওয়ামী লীগ সাংসদ মোস্তাফিজকে বহিস্কার করে শাস্তির আওতায় না আনলে মুক্তিযোদ্ধারা কঠোর আন্দোলনে নামবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেন মুক্তিযোদ্ধারা।