Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বিজেপির বি -টিম আইএসএফ?

1 min read


।। ময়ুখ বসু ।।


তাহলে কি ভূত লুকিয়ে সর্ষের মধ্যে? বাংলায় ভোটের বাজারে বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ জোটে ক্রমশ অশান্তির বাতাবরণ মাথাচাড়া দিচ্ছে। ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট (আইএসএফ)-এর একাধিক প্রার্থীর বিরুদ্ধে এবারে সরাসরি বিজেপি যোগের অভিযোগ তুলতে শুরু করেছে তাদেরই শরিক দল সিপিএম। যা নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে ফের নতুন করে শোরগোল পড়তে শুরু করেছে। অভিযোগ উঠছে, একাধিক কেন্দ্রে আইএসএফ প্রার্থীদের সঙ্গে বিজেপির গোপন গাঁটছড়া রয়েছে। আর সেই কারণেই ভোটের মুখে জোট ধর্ম ভেঙে সংযুক্ত মোর্চার শরিক দল ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের (আইএসএফ) বিরুদ্ধে নিজেদের প্রতীকে প্রার্থী দেওয়ার পথে হাঁটতে শুরু করল সিপিএম।

আসন সমঝোতা হয়ে যাওয়ার পরেও এই ধরণের ঘটনা কার্যত জোটে ফের জটের সম্ভবনাকে বাড়িয়ে দিলো। বিজেপি যোগের অভিযোগে ইতিমধ্যে নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে আইএসএফ প্রার্থী অনুপ মন্ডলের বিরুদ্ধে মনোনয়ন জমা দেন সিপিএমের ঝুনু বৈদ্য। সিপিএমের অভিযোগ, আইএসএফের প্রার্থী অনুপ মন্ডলের স্ত্রী গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপির হয়ে প্রার্থী হয়েছিলেন। আর সেই কারণেই অনুপ মন্ডলের সঙ্গে বিজেপির গোপন আঁতাত রয়েছে বলে মনে করছে সিপিএম।

একইভাবে নদীয়ার চাপড়া বিধানসভা কেন্দ্রে আইএসএফ প্রার্থী কাঞ্চন মৈত্রকে নিয়েও অভিযোগ উঠেছে। এক্ষেত্রে কংগ্রেস প্রথম থেকেই অভিযোগ তুলে আসছিল যে, কাঞ্চন মৈত্রের সঙ্গে বিজেপি যোগ রয়েছে। এবারে একই অভিযোগ তুলে এই চাপড়া কেন্দ্রে আইএসএফ প্রার্থীর বিরুদ্ধে নিজেরাই প্রার্থী দিলো সিপিএম। গতকাল এই কেন্দ্রে সিপিএম তাদের প্রার্থী হিসাবে দাঁড় করিয়েছে জাহাঙ্গির বিশ্বাসকে। যদিও সিপিএমের এই প্রার্থীকে নিয়ে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে জোট শরিক কংগ্রেস এবং ফরওয়ার্ড ব্লকের মধ্যে।

কংগ্রেস দাবি করেছে, সিপিএম জোটধর্ম পালন করছে না। অন্যদিকে ফরওয়ার্ড ব্লকের তরফে বলা হয়েছে, সিপিএম প্রার্থী দিয়ে ঠিক করলো না। এদিকে এই ঘটনায় চাপড়া কেন্দ্রের আইএসএফ প্রার্থী কাঞ্চন মৈত্র বলেন, এই ঘটনায় যদি জোট প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়, তার জন্য দায়ী থাকবে চাপড়ার সিপিএম। অন্যদিকে সিপিএম প্রার্থী জাহাঙ্গীর বিশ্বাস বলেন, আমরা জোট চেয়েছিলাম বলেই চাপড়া আইএসএফকে ছেড়ে দিয়েছিলাম। কিন্তু তাই বলে বকলমে বিজেপির হাতে আসন তো ছেড়ে দেওয়া যায় না।

স্বাভাবিকভাবেই জোটের অন্দরে এই জটের কারণে ভোটের মুখে জোট নিয়ে উঠে যাচ্ছে বড়োসড়ো প্রশ্নচিহ্ন। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, সিপিএম যেভাবে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে বিজেপি যোগের অভিযোগ তুলছে তাতে একুশের ভোট ময়দানে বাংলায় আব্বাসের দল বিজেপির বি-টিম হয়ে কাজ করছে কি না সেই প্রশ্ন নতুন করে উস্কে দিতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে।