নবান্ন অভিযানকে ঘিরে খন্ডযুদ্ধ পুলিশ-বিজেপির

1 min read

।। স্বর্ণালী তালুকদার ।। কলকাতা ।।

প্রতিশ্রতি অনুযায়ী নবান্ন অভিযানে বেরিয়েছেন বিজেপির বিভিন্ন নেতারা। ইতিমধ্যেই হেস্টিংস, হাওড়া ময়দান এবং সাঁতরাগাছি এলাকায় পুলিশ এবং বিজেপি নেতাদের মধ্যে খন্ডযুদ্ধ শুরু হয়েছে। নেতাদের এবং কর্মীদের আটকাতে পুলিশ রাস্তায় ব্যারিকেড বসিয়েছে। রীতিমতো রণক্ষেত্র হয়ে উঠেছে এই তিনটি এলাকা। রাস্তায় বসে নেতা এবং কর্মীরা অবরোধ করছেন। পুলিশের সঙ্গে নেতা এবং কর্মীদের বচসাও শুরু হয়েছে।

জল কামান, কাঁদানে গ্যাসের শেল ছাড়া হচ্ছে মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে। বেশ কিছু এলাকায় লাঠিচার্জও করা হচ্ছে মিছিলের বিজেপি সমর্থক কর্মীদের। হাওড়া পুলিশ পুরোদমে এলাকায় শান্তি বজায় রাখার স্ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তার মোড়কে মুড়ে ফেলা হয়েছে। এলাকায় বিপুল পরিমাণে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। মিছিল নির্ধারিত এলাকার বাইরে আসতে চাইলে পুলিশ তাদের ফিরে যেতে বলেন।

আরো পড়ুনঃ বিজেপি-র নবান্ন অভিযান: পুলিশের জলকামান ও লাঠিচার্জ

কিন্তু সায়ন্তন বসু, সৌমিত্র খাঁয়ের মত নেতারা মিছিল ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে নাকচ করে দেয়। সর্মথকদের সঙ্গে পুলিশের বচসা শুরু হয়, যা পরবর্তীকালে হাতাহাতি এবং লাঠি চার্জে পরিবর্তিত হয়। বিভিন্ন জায়গায় সমর্থকেরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছোঁড়া হয়েছে। আত্মরক্ষার স্বার্থে পুলিশ জলকামান ছোঁড়ে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে কাঁদানে গ্যাস ছাড়া হয়।

হাওড়ার সাতরাগাছি এলাকায় বিক্ষোভকারিদের ছত্রভঙ্গ করতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে অসুস্থ হয়ে পড়ন রাজু বন্দোপাধ্যায়। রাস্তায় মিছিল আটকাতে রঙ মেশানো জল ছোঁড়া হয়। সেই জলের আঘাতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন, রাস্তায় শুয়ে পরেন। অন্যদিকে বিজেপি নেতা সব্যসাচী দত্ত হেস্টিংসের রাস্তায় বসে অবরোধ বিক্ষোভ করতে গিয়ে বলেন, বিজেপিকে ভয় পেয়ে পুলিশকে দিয়ে করাচ্ছে। আগে সিপিএম এরকম করেছিল, এখন তৃনমূল করছে। এরা সব পুলিশের লোক।