ষষ্ঠবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ট্রফি জিতল বায়ার্ন

1 min read

।। শুভব্রত মুখার্জি ।।

ষষ্ঠবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের ট্রফি জয় করল জার্মান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। ২০১৩ সালের পরে ফের ইউরোপ সেরা হল বায়ার্ন। দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে পিএসজিকে ১-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা ঘরে তুলল লেভানডস্কিরা।

লিসবনের ফাইনালে দুই দলের মাঝে ব্যবধান গড়ে দিল কিংসলে কোমানের একমাত্র গোল। ১৯ মিনিটে গোল পেতে পারত পিএসজি। ফিনিশ করতে ব্যর্থ হন নেইমার। নেইমারের শট বায়ার্ন গোলরক্ষক ম্যানুয়াল ন্যুয়ার দুরন্তভাবে বাঁচিয়ে দেন।

২২ মিনিটে বায়ার্নের রবার্ট লেভানডোস্কির ডি বক্সের মধ্য থেকে নেয়া শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। পরের মিনিটেই অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার শট একটুর জন্য পোস্টের ওপর দিয়ে চলে যায়। ৩২ মিনিটে বায়ার্নের সহজতম সুযোগটি বাঁচিয়ে দেন কেইলর নাভাস।প্রথমার্ধের অ্যাডেড সময়ে পিএসজির সহজ সুযোগ নষ্ট করেন এমবাপে। ০-০ অবস্থায় বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধে ৫৯ মিনিটে কাঙ্খিত গোলের দেখা পায় বায়ার্ন। কিমিচের ক্রস থেকে নিচু হেডে ডান দিকের পোস্ট দিয়ে বল গোলে পাঠান ফরাসি মিডফিল্ডার কিংসলে কোম্যান। এটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে বায়ার্নের ৫০০ তম গোল । সামনে রয়েছে শুধু রিয়াল (৫৬৭) ও বার্সেলোনো (৫১৭)। ১-০ গোলে পিছিয়ে পড়ার পর মরিয়া হয়ে চেষ্টা করে পিএসজি। ৬৬ মিনিটে ফের সুযোগ নষ্ট করেন এমবাপে।

মার্কিনহোসের শট পা দিয়ে অসাধারণভাবে ঠেকিয়ে দেন ন্যুয়ার। ৮৩ মিনিটে পিএসজি রক্ষণ ভেঙে দিয়েছিলেন প্রায় লেভানদোস্কি। তাকে কোনরকমে আটকান ডিয়েগো সিলভা, ফলে তাকে হলুদ কার্ড দেখতে হয়।অতিরিক্ত সময়ে পাল্টা আক্রমণে গোল শোধের দারুণ সুযোগ পেয়েছিল পিএসজি। বক্সের মধ্যে নেইমার বাঁকানো শট নেন সেটি একটুর জন্য পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়। ফলে শেষ পর্যন্ত ১-০ ফলে জিতেই ইউরোপ সেরা হল বায়ার্ন।