নির্বাচনের জন্য বাংলাকে কুকথা,একটু দেরি হলেই আন্দোলন?বলেন মমতা

।। রাজীব ঘোষ ।।

রাজ্যের করোনা এবং আমপান পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি বলেন রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। হাসপাতালের বেডে চাহিদাও বাড়ছে। সুস্থ হলে ১৪ দিনের আগে ছাড়া হোক। নতুন করে আরও চার হাজার বেড তৈরি করা হচ্ছে। করোনায় মৃত্যুর বেশিরভাগই আনুষঙ্গিক রোগে হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৩১ শে জুলাই পর্যন্ত সরকারি অফিসে ৫০% হাজিরার কথা ঘোষণা করেন।তিনি জানান সংক্রমণ বাড়তে থাকায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওয়ার্ক ফ্রম হোমে বেশি জোর দিতে হবে। এরপরই তিনি প্রশ্ন করেন আপনারা কাদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক যুদ্ধ করছেন? যারা বড় বড় কথা বলছেন কী দিয়েছেন? আমরা ভেবেছিলাম ১০ হাজার ভেন্টিলেটর পাব। বিনামূল্যে পিপিই পাব মাস্ক পাব।

ধৈর্য ধরুন সরকারকে একটু সুযোগ দিন। একটু দেরি হলেই আন্দোলন? যারা পরিষেবা দিচ্ছেন তারাও মানুষ। বাংলাকে কি দিয়েছে কেন্দ্র। একমাত্র নির্বাচনের জন্য বাংলা কে কুকথা বলা হচ্ছে। এরপরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমপান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। সেখানে প্রত্যেককে সঠিক ভাবে ত্রাণ দেওয়ার কথা জানান।

এদিন নবান্ন থেকে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় রাজ্যপালের প্রসঙ্গে বলেন রাজ্যপাল রাজনৈতিক দলের মত কথা বলতে পারেন না। রাজ্যপালের পদের মর্যাদা আমরা জানি। আশাকরি নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সম্মান করা হোক। বৈঠকে রাজ্যপালের অভিযোগ সম্পর্কে বিস্তারিত বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।