Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পায়েল -শ্রাবন্তীর খুব প্রশংসা করলেন বাবুল, বললেন ‘ওঁরা জয়ী হবে’

।। শর্মিলা মিত্র ।।

রাজনীতির ময়দানে নেমেই ভোটের ময়দানে লড়ার ছাড়পত্র পেয়ে গিয়েছেন দুজনেই। অভিনয় জীবনে ছক্কা, চৌকা মারলেও রাজনীতির ময়দানে সদ্য পা রেখেছেন দুজনেই। রাজনীতিতে পা রেখেই যুযুধান দুই প্রতিপক্ষের সম্মুখীন অভিনেত্রী তথা ভারতীয় জনতা পার্টির দুই প্রার্থী পায়েল সরকার এবং শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। দুজনেই কিছুদিন আগেই যোগদান করেছেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে। তারপরই তাঁদের বিধানসভা নির্বাচন প্রার্থী করেছে গেরুয়া শিবির।


ভারতীয় জনতা পার্টির বেহালা পূর্বের প্রার্থী হলেন পায়েল সরকার। তাঁর প্রতিপক্ষ হিসেবে রয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী রত্না চট্টোপাধ্যায়। যিনি কলকাতার প্রাক্তন মেয়র এবং ওই এলাকার বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে যোগদানের পর থেকেই ওই এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছের মানুষ হয়ে উঠেছেন।

অন্যদিকে বেহালা পশ্চিমের বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। তাঁর প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন মন্ত্রী এবং বিদায়ী বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

এবার ভারতীয় জনতা পার্টির এই দুই তারকা প্রার্থীর হয়ে প্রচার সারলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা টালিগঞ্জের ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়।

বাবুল সুপ্রিয় বলেন, ‘পায়েল এবং শ্রাবন্তী এরা বাংলার দুই কৃতী সন্তান তাই নন অত্যন্ত জনপ্রিয় দুটি মুখ। প্রথমবার দুজনেই রাজনীতিতে নামলেও রাজনীতির বাইরে মানুষের খুব কাছে পৌঁছেছেন। ভীষণ ভালোবাসা পেয়েছেন। আমরা সবাই সেই ভালোবাসা পেয়েছি। রাজনীতির ময়দানে এসে আমরা কেউ সেই ভালোবাসা হারাতে চাইনা।’

পাশাপাশি বাবুল সুপ্রিয়র মন্তব্য, ‘মোদিজির দেখানো পথে পশ্চিমবঙ্গে যাতে একটি মানুষের টাকায় মানুষের কাজ হবে সেরকম একটি সরকার যাতে প্রতিষ্ঠা করা যায়। সেই লক্ষে আমরা সবাই নেমেছি। পাশাপাশি দাঁড়িয়েছি।’ একইসঙ্গে তিনি জানান ‘বেহালাবাসীর স্বত:স্ফূর্ততা দেখে একশো শতাংশ নিশ্চিত দুজনেই এই অঞ্চল থেকে বিপুল ভোটে জয়ী হবেন।’

পাশাপাশি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তাঁর মন্তব্য, ‘যে নেত্রীর ব্র্যান্ড নেমের তলায় এরা কাজ করছিল সবাই এক একজন দুর্নীতির মাস্টার। দুর্নীতির পোস্টারবয়। এলাকার কোনো উন্নয়ন করতে পারেন নি।’ পাশাপাশি শিক্ষা ক্ষেত্রেও বিভিন্ন দুর্নীতির কথাও তুলে ধরেন বাবুল সুপ্রিয়।পাশাপাশি তিনি আবারও বলেন, তিনি খুবই আত্মবিশ্বাসী বেহালা পূর্ব ও বেহালা পশ্চিম কেন্দ্র থেকে বিপুল ভোটে পায়েল ও শ্রাবন্তীর জেতার বিষয়।

মমতা বন্দ্যোপাধায় জিতবেন বলছেন, সেই বিষয় বাবুল সুপ্রিয়র মন্তব্য, ‘বলতে দিন না আর কদিনের তো ব্যাপার। ২ তারিখ রেজাল্ট বেরিয়ে গেলে বাংলার মানুষ যে নিজের মেয়েকে চায়না সেটা প্রমাণিত হয়ে যাবে’ বলেও মন্তব্য করেন বাবুল সুপ্রিয়। এইভাবেই পায়েল সরকার ও শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের প্রচারে রীতিমত গেরুয়া ঝড় তোলেন বাবুল সুপ্রিয়।