জায়গা দখলের অভিযোগ

।। হিমাদ্রি মন্ডল, বীরভূম ।।

কলকাতা পুলিশে কর্মরত এক পুলিশকর্মীর সিউড়িতে বসত বাড়ির পাশের জায়গা দখলের অভিযোগ তৃণমূল পরিচালিত কেন্দুয়া পঞ্চায়েতের প্রধান এর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে সিউড়ি 2 নম্বর ব্লকের কেন্দুয়া পঞ্চায়েত এলাকায়, এখানে কেন্দুয়া জোরাশীব তলা এলাকায় ওই পুলিশ কর্মীর বসত বাড়ির পাশে একটি পাঁচিল ঘেরা জায়গা। আজ সকাল থেকেই সেই জায়গা দখলের অভিযোগ উঠল কেন্দুয়া পঞ্চায়েতের প্রধান এর বিরুদ্ধে।

পুলিশকর্মীর স্ত্রী দেবযানি গোস্বামী এর অভিযোগ আমাদের কিছু না বলে স্থানীয় কিছু দুষ্কৃতীরা জায়গা দখলের চেষ্টা করছে, আমরা কিছু বলতে গেলে আমাদের নোংরা নোংরা ভাষায় কথা বলছে। আমরা সকাল থেকেই পুলিশ প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছি কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ দেখিনি। আমার স্বামী কলকাতা পুলিশে কর্মরত এই করোনার সময় তিনি আসতে পারছেন না তাই এই সুযোগ নিয়েই তারা এ কাজ করছেন। তাদের এই জায়গায় একটা ক্লাব করার মতলব আছে।

ঘটনাস্থলে নেতৃত্ব দেওয়া কেন্দুয়া পঞ্চায়েতের প্রধান নারায়ণ বাগদী দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এই জায়গাটি একটি ট্রাস্টি বোর্ডের অধীনস্থ তাদের সঙ্গে কথা বলেই এই জায়গাটি আমরা সমান করছি। দীর্ঘদিন ধরেই এই স্থানে অসামাজিক কাজকর্ম চলছে এবং যে পাঁচিল দেওয়া ছিল সেটি বিপদজনক অবস্থায় ছিল যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়তে পারতো। সেই কারণে আমরা এই জায়গাটি সংস্কারের কাজ করছি, আগাছা গুলোকে পরিষ্কার করে দিচ্ছি যাতে অসামাজিক কাজকর্ম না হয় এখানে।

ঘটনাস্থলে সিউড়ি থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং কাজ বন্ধের নির্দেশ দেয়। পরে দুপক্ষকেই থানায় কাগজপত্র নিয়ে এসে দেখা দেয় বলা হয়।