আবার বড় সিদ্ধান্ত তৃণমূলে, অধিকারী পরিবারে খাঁড়ার ঘা

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

আইএনটিটিইউসি পরিচালিত ‘হলদিয়া রিফাইনারি টাউনশিপ মেইনটেনেন্স ওয়ার্কার্স ইউনিয়নে’র সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল দিব্যেন্দু অধিকারীকে।গত দু’বছর ওই সংগঠনের সভাপতি ছিলেন দিব্যেন্দু অধিকারী। সংগঠনের সদস্য সংখ্যা ৩৫০। স্থানীয় সূত্রের খবর, গত ১৯ অগস্ট আইওসি’র টাউনশিপের রক্ষণাবেক্ষণ বিভাগের ওই শ্রমিক সংগঠনের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। অভিযোগ, সেখানে সংখ্যা গরিষ্ঠ কর্মীদের সিদ্ধান্ত মতোই দিব্যেন্দুকে সরিয়ে কার্যকরী সভাপতি তথা হলদিয়ার প্রাক্তন পুরপ্রধান দেবপ্রসাদ মণ্ডলকে সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংগঠনের এক সদস্য বলেন, ‘‘সাংসদ কাঁথিতে বসে হলদিয়ার ভাল-মন্দের খবর রাখতে পারছিলেন না। বিপদে-আপদে পড়লে কার্যকরী সভাপতির কাছেই ছুটে যেতে হত। তাই সভায় সংখ্যা গরিষ্ঠদের মতকে প্রাধান্য দিয়ে ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’’ নতুন সভাপতি দেবপ্রসাদও বলছেন, ‘‘কার্যকরী সভাপতি হিসাবে সব দায়িত্বই পালন করেছি। ভবিষ্যতেও তা পালন করার চেষ্টা করব। এর মধ্যে কোনও রাজনীতি নেই।’’জেলা রাজনীতির পর্যবেক্ষকদের অবশ্য মত, শিল্পশহরেও রাশ আলগা অধিকারী পরিবারের।

তারই প্রমাণ কর্মী সংগঠনের সভাপতি পদ থেকে দিব্যেন্দুকে সরিয়ে দেওয়া। তবে ওই বৈঠকের কোনও বৈধতা নেই বলেই দাবি করছেন আইএনটিটিএইসি-র পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কার্যকরী সভাপতি শিবনাথ সরকার। তাঁর মতে, ‘‘বৈঠকটি সম্পূর্ণ অবৈধ। দলীয় নির্দেশিকা না মেনে অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সভাপতি পরিবর্তন করা হয়েছে।’’দিব্যেন্দুও বলছেন, ‘‘সভাপতিকে না জানিয়েই এই বৈঠক করা হয়েছে যা শ্রম আইন বিরোধী, অবৈধ। আর এখন যিনি সভাপতি হয়েছেন, তিনি তো প্রতারক।’’কিন্তু দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে না জানিয়ে বৈঠক হল কী করে শিবনাথের কাছে তার সদুত্তর পাওয়া যায়নি।