ফের রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত, জানুন বিস্তারিত

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

ফের রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত। রবিবার দুপুরে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর তিনটি টুইটে করে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাগলেন। তিনি বলেন রাজ্য সরকারের কাছে কোনো রিপোর্ট চাইলে তা দিচ্ছে না। রাজ্য সরকার তথ্য লুকিয়ে সাংবিধানিক দায়িত্ব এড়িয়ে যাচ্ছে। আইন অনুযায়ী তথ্য জানার অধিকার সবার আছে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে কিছু জানতে চাইলে সাধারণ মানুষকে পুলিশ গিয়ে ভয় দেখায়। রাজ্যপালের টুইটের পাল্টা জবাব দিয়ে তৃণমূলের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ, রাজ্যপাল এক্তিয়ার বহির্ভূত কাজ করছেন।

রাজ্যপাল এদিন তাঁর টুইটে মুখ্যমন্ত্রীর সরকারি টুইটার হ্যান্ডলকে ট্যাগ করেছেন। তিনি টুইট করে বলেন, ‘‘রাজ্যে রাজনৈতিক হিংসা, শিল্প সম্মেলনে দুর্নীতি, রেশন ব্যবস্থা, আমপানের ত্রাণ বিলিতে অনিয়ম হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এসব বিষয় রিপোর্ট চাওয়া হলেও উত্তর মেলে নি।কোনো ‘তথ্য ই দেওয়া হচ্ছে না। এত লুকনোর কী আছে? সরকার তার উত্তর দিক।

রাজ্যপালের মতে, রাজ্য সরকারের এই তথ্য এড়ানোর ই বলে দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে তথ্যের অধিকার আইনের কী করুণ পরিণতি। এর আগেও টুইটে রাজ্যপালের নিশানায় রাজ্যের শিল্প সম্মেলনকে থাকতে দেখা যায়। গত কয়েক বছরের সম্মেলনে কত খরচ হয়েছে, কত টাকা বিনিয়োগ হয়েছে, কতজন চাকরি পেয়েছে এই সমস্ত মোট ছটি বিষয় বিষয়ে জানতে চেয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় রাজ্যের অর্থসচিবকে চিঠি ও দিয়েছেন।

তিনি টুইটে বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট শুরু হয়েছিল। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়- এর কোথায়, “এই সম্মেলন থেকে যা লগ্নি এসেছে তার চেয়ে অনেক বেশি সম্মেলন করতে খরচ হয়েগেছে।

পাশাপাশি যে বিষয়গুলি নিয়ে অর্থসচিবের কাছে চিঠি দিয়েছেন সেগুলি হল – প্রতি বছর কোন সংস্থার মাধ্যমে কত টাকা খরচ হয়েছে? সংস্থাটি কি সরাসরি টাকা পেয়েছে নাকি, FICCI,-র মাধ্যমে মাধ্যমে পেয়েছে? বছরে কতগুলি মউ সই হয়েছে, লগ্নি ও চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে? বছরে কত বিনিয়োগ এসেছে, কতো জন কাজ পেয়েছেন? এসবের খুঁটিনাটি জানতে চান তিনি। ধনকারের অভিযোগ, এই শিল্প সম্মেলন আয়োজন করা নিয়ে অনেক টাকার গণ্ডগোল রয়েছে।