বীরভুম জেলায় দুর্ঘটনা কমেছে ৬০%, পুলিশ সুপার

।। হিমাদ্রি মণ্ডল ।।

রাজ্যজুড়ে দিনের পর দিন পথদুর্ঘটনা বেড়ে চলায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১৬ সালের ৮ই একটি নতুন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। যা হলো ‘সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ’। আর এই প্রকল্পের উত্তরোত্তর প্রচারের ফলে বর্তমানে রাজ্যে দুর্ঘটনার সংখ্যা অনেকটাই কমেছে। রাজ্যের পাশাপাশি বীরভূমেও কমেছে দুর্ঘটনার সংখ্যা। ২০২০ সালে সংখ্যাটা কমেছে প্রায় ৬০%। এমনই পরিসংখ্যান তুলে ধরলেন বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং।

বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বুধবার জানান, “২০১৮ সালে বীরভূম জেলায় সব মিলিয়ে ৪৩৩ টি ট্রাফিক অ্যাক্সিডেন্ট হয়েছিল। এরপর ২০১৯ সালে তা কমে দাঁড়ায় ৪২০। অর্থাৎ ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে পথদুর্ঘটনা কমে ১৩টি। আর ২০২০ সালে এই পথদুর্ঘটনা সংখ্যাটা কমে দাঁড়িয়েছে ১৫৭। শতাংশের বিচারে কমেছে প্রায় ৬০ শতাংশ।” তবে এবছর পথদুর্ঘটনা কমার জন্য বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং লকডাউনের প্রসঙ্গকেও তুলে ধরেছেন। তিনি জানিয়েছেন, “দীর্ঘদিন ধরে লকডাউন এত সংখ্যক দুর্ঘটনা কমারও একটা কারণ।”

একইভাবে মৃত্যু হারও কমেছে বলে জানান বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং। পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি জানিয়েছেন, “২০১৮ মৃত্যু সংখ্যা ছিল ৩১৮। যা ২০১৯ সালে কমে দাঁড়িয়েছে ২৫০। কমেছিল ২০ শতাংশ। আর ২০২০ সালে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৮৭। পাশাপাশি আহত হওয়ার সংখ্যাও কমেছে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত।”

বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং মানুষের সচেতনতা প্রসঙ্গে এদিন জানান, “প্রথম দুই তিন বছর আমাদের বিপুল পরিমাণে প্রচার চালাতে হয়েছিল। আর সেই প্রচারের ফলস্বরুপ এখন দেখা গিয়েছে মানুষকে সেভাবে বেশি জোর করতে হয় না। তারা নিজে থেকেই অনেকটা সচেতন হয়ে উঠেছেন। চলতি বছর মাত্র ৭৫ টি ফাইন কথা হয়েছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও দেখা যাচ্ছে দুর্ঘটনার সংখ্যা, দুর্ঘটনায় মৃত্যু ও আহতের সংখ্যা অনেকটাই কাছাকাছি ৪০% কমে গেছে।”

বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং এদিন আরও জানান, “ট্রাফিক ব্যবস্থাই সম্পূর্ণ চেহারাটাই বদলে গেছে। আগামী দিনের রাজ্যজুড়ে আরও ২৫০০ ট্রাফিক পোস্ট তৈরি হচ্ছে। এত বড় ট্রাফিক ব্যবস্থা ভারতবর্ষে আর দ্বিতীয় কোথাও নেই। বীরভূম জেলা কেউ নতুন করে অনেক ট্রাফিক পোস্ট তৈরি হয়েছে। ট্রাফিক হেডকোয়ার্টার তৈরি হবে নতুন করে এবং নতুন করে দুটি ট্রাফিক গার্ড তৈরি হচ্ছে রামপুরহাট ও মহঃবাজারে। এছাড়াও আলাদা করে একটি হাইওয়ে ট্রাফিক গার্ড তৈরি হচ্ছে।”

প্রসঙ্গত, সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ প্রকল্প বুধবার চতুর্থ বর্ষে পা রাখল। আর এই চতুর্থবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে এদিন করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বীরভূমের সিউড়ি শহরের পুলিশ লাইনে বীরভূম জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে দিনটি পালন করা হয়। যে অনুষ্ঠান মঞ্চে উপস্থিত রয়েছেন বীরভূম জেলা সমাহর্তা মৌমিতা গোদারা বসু, বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং, বীরভূম জেলা পরিষদ পরামর্শদাতা অভিজিৎ সিংহ এবং অন্যান্য সম্মানীয় ব্যক্তিরা।

এম/বি