Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

নতুন সূর্যোদয় ঘটবে, শেষ পরিবর্তনটা দেখতে চান মুকুল

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

২০০৭ সালের নন্দীগ্রাম আন্দোলন রাজ্য রাজনীতির মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল। সেই আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তৎকালীন তৃণমূল বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। তৃণমূল কংগ্রেস সেই আন্দোলনের রাশ হাতে তুলে নিয়েছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই আন্দোলনকে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন রাজ্য জুড়ে। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী না থাকলে সেই আন্দোলন কোন ভাবেই সংঘটিত হতো না। সেকথা ফের একবার মনে করিয়ে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায় ( Mukul Roy)। শুক্রবার নন্দীগ্রামে সভা করল বিজেপি। সভার মূল আকর্ষণ অবশ্যই শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari)।

তার আগে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শুভেন্দুর প্রশংসায় মুখর হয়ে ওঠেন মুকুল। তিনি বলেন,” নতুন করে সূর্যোদয় ঘটাতে হবে। বাংলায় ফের পরিবর্তন দেখতে চাই। সিঙ্গুর আন্দোলনে যোগ দিয়ে আমরা ভুল করেছিলাম। আমার সেই ভুলের কথা অনেকবার স্বীকার করেছি। সেখানে কারখানা হলে রাজ্যের অবস্থা বদলে যেত। বিজেপি ক্ষমতায় এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অনুরোধ করব সেখানে নতুন করে শিল্প তৈরি করার জন্য। কিন্তু নন্দীগ্রামের আন্দোলন পুরোপুরি আলাদা ছিল। সেখানে জোর করে মন্দির, মসজিদ কেড়ে নিয়েছিল সিপিএমের হার্মাদরা। সেই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিল শুভেন্দু। কিন্তু আমারও তাতে কিছু ভূমিকা ছিল। আজকের দিনে ৩ জন শহীদ হয়েছিলেন। আমি একটা মোটর বাইকে করে তেখালি পৌঁছেছিলাম।

এখনো সব স্মৃতি টাটকা।” এদিন নিজের বক্তব্যে বারবার শুভেন্দুর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন মুকুল। তিনি বলেন, শুভেন্দু না থাকলে নেতাইকে আজকে কেউ মনে রাখত না। নেতাই এবং নন্দীগ্রামের শহীদ পরিবারের সঙ্গে নিত্য যোগাযোগ রেখে গিয়েছেন শুভেন্দু। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলছেন প্রচুর নাকি উন্নয়ন করেছেন। আসলে সব মিথ্যা বলছেন। বাংলায় এর আগে মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন বিধানচন্দ্র রায়, প্রফুল্ল সেন, অজয় মুখার্জি, সিদ্ধার্থ শংকর রায়, জ্যোতি বসু, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। কিন্তু কোনদিন দেখিনি কেউ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো এত মিথ্যা কথা বলেছেন। নন্দীগ্রামে এমন ভালো ফল করতে হবে আমাদের, তাতে গোটা দেশের কাছে বার্তা যায়।

বাংলার মানুষ বিশেষ শিক্ষা পাবে সেই ফল দেখে। এর পাশাপাশি কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ভূমিকার কথা বিশেষভাবে তুলে ধরেছেন মুকুল। তিনি বলেন, কৈলাসজি আমাদের বোঝাতে পেরেছেন, আমাদের মনে সেই বিশ্বাস এনে দিয়েছেন যে বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় আসতে পারে। আমরা সেভাবেই কাজ করছি। বক্তব্যের শেষে ফের শুভেন্দু সম্পর্কে তিনি বলেন, ও যেভাবে নন্দীগ্রাম আন্দোলন সংগঠিত করেছে সেটা স্বীকার না করলে সত্যের অপলাপ হবে। আজকের নন্দীগ্রামের সভা পুরোপুরি যে শুভেন্দুময়, সেটা এভাবেই বুঝিয়ে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়।