ট্রাম্প, সৌদি রাজা ও রাজপুত্রকে মৃত্যুদণ্ড দিল ইয়েমেনের আদালত

1 min read

।। সুদীপ মান্না ।।

উত্তর ইয়েমেনের সায়াদা প্রদেশের একটি আদালত ১০ জনকে মৃ্ত্যুদণ্ড দিল। এদের মধ্যে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, সৌদি রাজা সালমান বিন আব্দুলাজিজ ও তার পুত্র রাজকুমার মহম্মদ বিন সালমান। ২ বছর আগে ছাত্র-সহ একটি বাসের ওপর রিয়াধ-নেতৃত্বাধীন জোটের ভয়ানক বিমান হামলার ঘটনায় এই সাজা ঘোষিত হয়েছে।

আগস্ট ২০১৮র শুরুতে সায়াদা প্রদেশের দাহইয়ান বাজারে শিশুদে্র নিয়ে একটি স্কুল বাস ওয়াশিংটন প্রশিক্ষিত ও অস্ত্রসহ জোটের বিমান হামলার শিকার হয়। এই জোটকে সামরিকভাবে সমর্থন জানিয়েছিল ব্রিটেন ও অন্যান্য পশ্চিমী দেশগুলি।

এই হামলায় ৫১ জন নিহত হয়। তাদের মধ্যে ১০ থেকে ১৩ বছরের ৪০ জন শিশু ছিল। আহত হয়েছিল ৭৯ জন।

প্রধান বিচারপতি রিয়াদ আল-রাজামির সভাপতিত্বে রায় দেওয়া হয় ১০ জনকে অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করে। ট্রাম্প সহ প্রাক্তন প্রতিরক্ষা সচিব জেমস মাট্টিস, রাজা সালমান, মহম্মদ বিন সালমান, রাজকুমার তুর্কি বিন বান্দার বিন আব্দুলাজিজ আল সাউদ এবং পলাতক ইয়েমেনি প্রেসিডেন্ট আবদ্রাব্বু মনসুর হাদিকে ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়।

হামলায় মৃতদের পরিবারকে দেওয়ার জন্য দোষীদের ১০ বিলিয়ন ডলার জরিমানাও করা হয়।

ওই হামলার পর ছবিতে মার্কিন বোমার টুকরো দেখা গিয়েছিল।

এই শিশু মৃত্যুর ঘটনার নিন্দা করেছিলেন রাষ্ট্রপুঞ্জের সেক্রেটারি জেনারেল আন্তনিও গুতেরেস। রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদ এই রক্তাক্ত ঘটনার বিশ্বাসযোগ্য ও স্বচ্ছ তদন্তের দাবি জানিয়েছিল।

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট যদিও এই হামলাকে ন্যায়সঙ্গত বলে দাবি জানিয়েছিল। তাদের মুখপাত্র বলেছিল এই হামলা আন্তর্জাতিক ও মানবতাবাদী আইনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ।