Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

সিপিএমের যুব সংগঠনের উদ্যোগে ‘জ্যোতিবাবুর পাঠশালা’, অভিনব পন্থায় শিক্ষা দিচ্ছে কচিকাঁচাদের

1 min read

।। ময়ুখ বসু ।।

রাজ্যজুড়ে করোনা আবহের কারণে দীর্ঘদিন ধরেই বন্ধ রয়েছে পড়াশোনা। আর লেখাপড়ার পাঠ বন্ধ হওয়ার কারণে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কচিকাঁচাদের মধ্যে অনীহা তৈরি হয়েছে পড়াশুনা নিয়ে। বিশেষ করে রাজ্যের বিভিন্ন জেলাস্তরে উপজাতি ও তফসিলি সম্প্রদায় পরিবারের বহু শিশুই ইতিমধ্যে স্কুলছুট হয়ে গিয়েছে। শিকেয় উঠেছে পড়াশুনার পাঠ। সেখানে দাঁড়িয়ে এই সমস্ত শিশুদের যাতে লেখাপড়ার মধ্যে ফের ফিরিয়ে আনা যায় সেকথা মাথায় রেখেই অভিনব উদ্যোগ নিলো সিপিএমের যুব সংগঠন ডিওয়াইএফআই। গতকাল বৃহস্পতিবার ছিলো রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বামপন্থী নেতা জ্যোতি বসুর ১০৮ তম জন্মদিন। সেই জন্মদিন উপলক্ষ্যে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সিপিএমের যুব কর্মীরা জেলায় স্কুলছুট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের নিয়ে চালু করলেন ‘জ্যোতিবাবুর পাঠশালা’

জানা গিয়েছে, এই পাঠশালায় কচিকাঁচাদের লেখাপড়া শেখাবেন সিপিএমের যুব কর্মীরাই। দক্ষিণ দিনাজপুরের ডিওয়াইএফআইয়ের সম্পাদক শুভজিত দাস জানিয়েছেন, স্কুলছুট শিশুদের যাতে লেখাপড়ার মধ্যে ফের ফিরিয়ে আনা যায় সেকথা মাথায় রেখেই এই উদ্যোগ। মূলত এই জ্যোতি বাবুর পাঠাশালায় শিশুদের শিক্ষা দেবেন সিপিএমের রেড ভলান্টিয়ার্স এবং যুব কর্মীরা। করোনা সংক্রমের কথা মাথায় রেখে স্যানিটাইজার ব্যবহারের সঙ্গে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই পাঠাশালায় শিশুদের বসানোর ব্যবস্থা করা হবে। এই পাঠশালায় প্রাথমিক স্তরের লেখাপড়াই শেখানো হবে। জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে উত্তর দিনাজপুর জেলায় প্রত্যেকদিন এই স্কুল চালু থাকবে না। সপ্তাহে তিনদিন করে শিক্ষা দেওয়া হবে। সকাল এগারোটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত চালু থাকবে এই পাঠশালা। পাঠশালায় পড়াশুনার পাশাপাশি অবশ্যই শিশুদের জন্য থাকছে জলযোগের ব্যাবস্থাও।

রাজনৈতিক মহলের মতে, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে জোর ধাক্কা খাওয়ার পর কার্যত দিশেহারা বঙ্গ সিপিএম। সেখানে দাঁড়িয়ে কীভাবে বাংলায় ফের ফিরে আসা যায় তা নিয়ে পার্টি স্তরে চলছে নানা জল্পনা। সিপিএমের তরফে জনসংযোগ ও মানুষের কাছাকাছি পৌছে যাওয়ার লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই নানা কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে। যেখানে বাড়ি বাড়ি চিঠি পাঠিয়ে তাদের পরিকল্পনার কথা মানুষকে জানিয়ে মানুষের মতামত নেওয়ার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। এবারে সেখানে দাঁড়িয়ে সিপিএমের যুব সংগঠনের নজরকাড়া পদক্ষেপ এই জ্যোতিবাবুর পাঠশালা। এই প্রসঙ্গে সিপিএম নেত্রী দীপ্সিতা ধর অবশ্য জানান, এক একজন মানুষ এক এক রকমভাবে পরিচিত হন। যেহেতু জ্যোতি বসু জ্যোতিবাবু নামেই বেশি পরিচিত ছিলেন তাই এই শিক্ষাদান কেন্দ্রের নাম জ্যোতিবাবুর পাঠশালা রাখা হয়েছে।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ

পিসিসি

Categories