Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

হরিতকির ম্যাজিকে মিটবে হজমের সমস্যা, বাড়াবে মেটাবলিজম

||শুভ্রদীপ চক্রবর্তী||

চিকিৎসা বিজ্ঞানের অন্য একটি অধ্যায় হলো আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা। আর এই চিকিৎসায় ব্যবহৃত প্রাকৃতিক ভেষজ গুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ত্রিফলা। এই তিনটি ফলের মধ্যে একটি ফল হলো হরিতকি। যার ইংরেজি নাম মাইরাবেনাল। খানিকটা খেজুরের মতো দেখতে এই ফল স্বাদে তিতো হলেও রয়েছে নানান উপকারিতা। এই ফলে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ট্যানিন, অ্যামাইনো এসিড, ফুট্রোজ ও বিটা সাইটোস্টাবেলের মতো উপকারিতা উপাদান। এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন, আয়রন, ম্যাগনেশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, কপারের মতো নানান খনিজ যা ত্বক ও চুলের উপকারিতার পাশাপাশি দেহের অন্ত্র পরিষ্কার করে, শরীরে এনার্জি প্রদান করে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে ও অন্ত্রের খিঁচুনি কমাতে সাহায্য করে, হার্টের সমস্যার সমাধান করে, কোষ্টকাঠিন্যের সমস্যা কমায়, দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। তবে জেনে নিন বহুগুন সম্পন্ন এই হরিতকির সঠিক ব্যবহারে কিভাবে পাবেন নানান উপকারিতা।

১. রোজ দুপুরে বা রাতে খাওয়ার পরে উষ্ণ গরম জলে হরিতকির গুঁড়ো মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যেস রাখুন এতে করে হজম শক্তি বাড়বে। পেট পরিষ্কার থাকবে সাথে কমবে কোষ্টকাঠিন্যের মতো নানান সমস্যা।

২. আবহাওয়া পরিবর্তনের সাথে সাথে জ্বর, সর্দি কাশির সমস্যায় কমবেশি সকলকেই পড়তে হয়। এছাড়াও গরমে ঘাম কিংবা বৃষ্টিতে ভিজে ঠান্ডা লেগে যায় অনেকেরই। তাই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হলে রোজ উষ্ণ গরম জলে হরিতকি গুঁড়ো ও সামান্য নুন মিশিয়ে খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ার পাশাপাশি কমবে জ্বর, সর্দি, কাশির মতো সমস্যা।

৩. যাদের বাড়তি ওজন নিয়ে সমস্যা তাদের জন্য হরিতকি খুবই উপকারি। এটি শরীরে মেটাবলিজম ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে যার ফলে খাওয়ার দ্রুত হজম হয়। যা শরীরে বাড়তি ফ্যাট ও চর্বি জমতে দেয় না। তাই গোটা হরিতকি ঘি দিয়ে ভেজে গুঁড়ো করে রাখুন। রোজ খাওয়ার পর সেই গুঁড়ো জলে মিশিয়ে খেলে কমবে ওজন বাড়ার সমস্যা।

৪. বাতের ব্যথা উপশমেও হরিতকি খুবই উপকারি। এতে থাকা ক্যালশিয়াম দেহের হাড় শক্ত করে, জয়েন্ট পেন কমায়। এছাড়াও হরিতকির তেল প্রাচীনকাল থেকেই হাঁটুর ব্যথা কমানোর ঔষুধ হিসাবে ব্যবহার হয়ে আসছে।

৫. এসবের পাশাপাশি হরিতকি রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমায় যা ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। তাই ডায়বেটিস রোগীদের জন্যও হরিতকি উপকারি।

৬. চোখের নানান সমস্যা যেমন বার বার জল আসা, নার্ভ শুকিয়ে যাওয়া, ইনফেকশনের মতো চোখের যাবতীয় সমস্যায় চায়ের সাথে হরিতকি ফুটিয়ে সেই জল লাগালে কমবে সমস্যা। এছাড়াও হরিতকির ভেজানো জল খেলে বাড়বে চোখের জ্যোতি।

এসবের পাশাপাশি নিয়মিত হরিতকির গুঁড়ো মেশানো জল খেলে রক্ত চলাচল সচল থাকে যা হার্টের সমস্যা কমায় পাশাপাশি ত্বক ও চুলের যাবতীয় সমস্যা সমাধানেও এটি কার্যকরি ভূমিকা নেয়। তাই এই মহামারীর দিনে শরীরকে সুস্থ রাখতে রোজকার খাদ্যাভ্যাসে রাখুন হরিতকির জল।