Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

দশমীর ভিড়, আগল ভাঙল সতর্কতার

1 min read

।। শর্মিলা মিত্র ।।

করোনা আবহের মধ্যে দুর্গাপুজো। তার উপর হাইকোর্টের রায়, সবমিলিয়ে ষষ্ঠী, সপ্তমী ভিড়ের চেনা ছবি দেখা যায়নি কলকাতায়। কিন্তু অষ্টমীর রাত থেকেই আস্তে আস্তে চেনা ছন্দে ফিরতে শুরু করে তিলোত্তমা। নবমী নিশি পেরিয়ে দশমীতেও সাধারন মানুষের অসচেতনতার ছবিই দেখা গেল প্রায় সর্বত্র। হাইকোর্টের নির্দেশিকা, প্রশাসনের আর্জি, কোনও কিছুরই তোয়াক্কা না করে উৎসবে মাতলেন বহু বঙ্গবাসী।

যদিও, কলকাতার বিভিন্ন পুজো কমিটির দাবি, লোকাল ট্রেন বন্ধ থাকার কারনে ভিড় অনেকটাই কম হয়েছে এবার। অন্যদিকে, সমাজের একাংশ করোনার নিয়ম বিধি সতর্কতা মাথায় রেখে ঘরে বসেই পুজো কাটিয়েছেন। কিন্তু এসবের পরও শেষ দু দিনে যা ভিড় হয়েছে, তা যথেষ্টই আশঙ্কাজনক বলেই মনে করছেন চিকিৎসক থেকে শুরু করে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞেরা। জানা গিয়েছে, আদালতের বিধি উপেক্ষা করে মণ্ডপের ঢোকার বাধা সরিয়ে দিয়েছিল বেশ কিছু পুজো কমিটি।

নবমীর রাতে কলকাতা সহ রাজ্যের প্রায় সর্বত্রই জনস্রোত দেখা গিয়েছিল। অন্যদিকে, দক্ষিণ কলকাতার বহু মণ্ডপে ‘নো-এন্ট্রি জ়োন’-এর বাইরে দেখা গিয়েছিল ভিড়ের চেনা ছবি। অন্যদিকে, আদালতের তরফে মণ্ডপের ভিতরে সিঁদুর খেলা নিষিদ্ধ করলেও, মণ্ডপের বাইরে সেই খেলা বন্ধ থাকবে কি না, তা নির্ভরশীল ছিল মানুষের সদিচ্ছার উপর। আর তাই, সচেতনতাকে উপেক্ষা করেই ‘নো-এন্ট্রি জ়োন’-এর বাইরে সিঁদুর খেলায় মেতে ছিলেন অনেকেই। দশমীর দিন কলকাতায় শোভাযাত্রার অনুমতি দেয়নি পুলিশ।

আরো পড়ুন : বিসর্জনে প্রতিমা কাঠামোর নিচে পড়ে মৃত ৪

ফলে বিসর্জনের শোভাযাত্রা ছিল না ঠিকই। কিন্তু, কলকাতা সহ বিভিন্ন জেলায় বিসর্জন ঘাটে চোখে পড়েছে ভিড়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ছোট ঘাটগুলিতে বাড়ির প্রতিমা বিসর্জনে তুলনায় বেশি লোক এসেছিলেন। বেশ কিছু জায়গায় ভিড় হটানোর চেষ্টাও করতে দেখা গিয়েছে পুলিশকে। কলকাতার পাশাপাশি, অসচেতনতার ছবি ফুটে উঠেছে জেলা জুড়ে। নবমীর রাতে পথে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গিয়েছে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। অন্যদিকে, দশমীর দিন সকালে শিলিগুড়ির একাধিক মণ্ডপে ভিড় করে মাস্ক ছাড়াই সিঁদুর খেলায় মাততে দেখা গিয়েছে মহিলাদের।

নিয়ম বিধি উড়িয়ে ভিড় চোখে পড়েছে কোচবিহারে বড়দেবীর বিসর্জনেও। অন্যদিকে, নবমীর রাতে ভিড় দেখা যায় দুই বর্ধমানেরই শহরের বেশ কিছু পথে। নবমীর রাতে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায় পুরুলিয়া, আদ্রা, নিতুড়িয়া এবং হুগলি শিল্পাঞ্চল ও আরামবাগেও। পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদা, দাঁতন,  কেশিয়াড়ি, নারায়ণগড়ে নবমীর রাতে ভিড় সামলাতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয় পুলিশকে। অন্যদিকে, দর্শনার্থীদের অনলাইনে দেখানো হয় খড়্গপুরের দশেরা উৎসব।