Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

লালু প্রসাদকে সতর্ক করলেন অমিত শাহ, বিহারের রাজনীতিতে নয়া সমীকরণের ইঙ্গিত কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ?

1 min read

।। রিমিতা রায় ।।


বিহারে ঝটকা দেখিয়েছিলেন নীতীশ কুমার। “শুধু বিজেপির সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা নয়!অনেককেই পিছন থেকে ছুরি মেরেছেন নীতীশ”। লালু প্রসাদকে কেন সতর্ক করলেন অমিত শাহ? শেষ দানে লালু প্রসাদকেও মোক্ষম চাল নীতীশ কুমারের? বিহারে ফের পালা বদলের ইঙ্গিত অমিত শাহ – র? ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে বিরোধী ঐক্য শান দিতে মরিয়া নীতীশ কুমার। এরই মধ্যে নীতীশ কুমারের বিহারে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর। এনিয়ে ফের তোলপাড় জাতীয় রাজনীতি।কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ২ দিনের বিহার সফরের দিকে নজর ছিল রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। বিজেপির সঙ্গে জোট ভেঙে নীতীশের দল জেডিইউ ,লালু প্রসাদের আরজেডির হাত ধরেছে। উপমুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন লালু প্রসাদের ছেলে তথা তেজস্বী যাদব ।

বিহারের ক্ষমতার পালাবদলের পর আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদের বাড়ি গিয়ে দেখাও করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। তখন থেকেই বিজেপির সঙ্গে সম্পর্কে জোরদার ফাটল ধরে নীতীশ কুমারের। অগস্ট মাসের শুরুতেই বিহারের মসনদ থেকে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছে এনডিএ সরকার। তার মধ্যে লোকসভার আগে বিজেপি বিরোধী জোট গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন নীতীশ কুমার। তাই বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশের ওপর দিন দিন ক্ষোভ বাড়ছে গেরুয়া শিবিরের। এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহল। বিহারে পালাবদলের পর প্রথম সফরে নীতীশ কুমারকে কার্যত তুলোধোনা করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বিহারের মুখ্যমন্ত্রীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন । সরাসরি নীতিশের বিরুদ্ধে দল ভাঙানোর অভিযোগ তুললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বিহারের পুর্ণিয়াতে এক জনসভায় ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথা রেখে বিজেপির প্রচার কৌশলের সূচনা করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ‘জন ভাবনা মহাসভা’ নামের এই অনুষ্ঠান থেকে বিহারের মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে অমিত শাহ বলেন, “নীতীশ কুমার বিজেপি সঙ্গে প্রতারণা করেছে, তিনি শুধু একটি দলের সঙ্গে
বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন এমনটা নয়, নরেন্দ্র মোদীর নামে যাঁরা ভোট দিয়েছিলেন তাঁদের সঙ্গেও
তিনি বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। তাঁর কোনও আদর্শ নেই।ক্ষমতায় থাকার জন্য তিনি সমাজতান্ত্রিক আদর্শকে ছেড়ে যে কোনও দলে যেতে পারেন।”

দীর্ঘদিন ধরেই নীতীশ কুমার বিহারের জন্য বিশেষ মর্যাদার দাবি জানিয়ে এসেছেন। ২০০৭ সাল থেকে এই নিয়ে নীতীশ সরব হলেও আজও তা কার্যকর হয়নি। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে জেডিইউ তার মুখকে তুলে ধরতে চাইছে। নীতীশকে আক্রমণ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিযোগ ,“লালু প্রসাদের কোলে বসতে বিজেপির সঙ্গে প্রতারণা করেছেন নীতীশ কুমার, এভাবে কি প্রধানমন্ত্রী হতে চাইছেন নীতীশ কুমার?”সীমাঞ্চল আপনাকে এর জবাব দেবে নীতীশ কুমার।এইভাবে রাজনৈতিক জোট বদলে কি আপনি প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন?”

লালু প্রসাদকে সতর্ক করে অমিত শাহ বলেন,” আপনাকে পেছনে ফেলে নীতীশ কুমার কিন্তু কংগ্রেসের কোলে বসে পড়তে পারেন”। লালু প্রসাদকে কেন এরকম বললেন অমিত শাহ? তবে কি এবার নীতীশ কুমার কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মেলাতে চাইছেন? কয়েকদিন আগেই রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন নীতীশ কুমার। তবে বিরোধী জোটের প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নিয়ে নীতীশ একদম চুপ। এরই মাঝে এক বড় প্রতিশ্রুতি দেন নীতীশ কুমার। যেন বিরোধী দলের প্রধান মুখ তিনি। নীতীশ প্রতিশ্রুতি দেন, বিরোধী দলের জোট যদি ২০২৪ সালে ক্ষমতায় আসে, তাহলে পিছিয়ে থাকা সব রাজ্যকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া হবে। দীর্ঘদিন ধরেই নীতীশ বিহারের জন্য বিশেষ মর্যাদার দাবি জানিয়ে এসেছেন। তবে কি কংগ্রেসের সঙ্গে হাত ধরে সেদিকেই এগোতে চাইছেন নিতিশ কুমার?

“২০১৪ সালে নীতীশ কুমার না ঘরকা, না ঘাটকা ছিলেন।২০২৪ এর ভোট আসুক লালু-নীতীশকে একেবারে মুছে দেবে বিহারের মানুষ” বিহারে এমনটাই বলেন অমিত শাহ। তবে বিহারে এসে লালু প্রসাদকে অমিত শাহ- র সতর্কবার্তা যেন কানে বাজছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। অনেককেই পিছন থেকে ছুরি মেরেছেন নীতীশ কুমার, বলেছেন অমিত শাহ। তবে কি সুযোগ বুঝে লালু প্রসাদকেও মোক্ষম চাল দেবেন নীতীশ ? বিহারের এই সমীকরণ জাতীয় রাজনীতিতে কতটা প্রভাব ফেলবে ? সেদিকে নজর বিশ্লেষকদের।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories