Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Rail Blockade: কুড়মিদের টানা দু-দিনের অবরোধ, বাতিল বহু ট্রেন, চরম দুর্ভোগের মুখে জনসাধারণ

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

নিজেদের দাবি থেকে একেবারেই অনড় কুড়মি সমাজ। যতক্ষণ না পর্যন্ত তাদের ভাষা এবং ধর্মকে হাতে-কলমে না স্বীকৃতি দেওয়া হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত রেল অবরোধ তাঁরা তুলতে নারাজ। তাদের এই অবরোধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল প্রায় পঞ্চাশ ঘন্টা আগে। মাঝে এতগুলি সময় পেরিয়ে গিয়েছে। দুটি সম্পূর্ণ দিন রেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ পুরুলিয়া-আদ্রা ডিভিশনের (Purulia-Adra Division) কুস্তাউর এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়গপুর ডিভিশনের খেমাশুলি স্টেশনে। যার ফলস্বরূপ সাধারণ মানুষের সমস্যা আরও কয়েক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন নিত্যযাত্রীরা । বাতিল হয়ে গিয়েছে বহু ট্রেন , ঘুর পথে চলছে একাধিক ট্রেন।

কুড়মিদের তফশিলি উপজাতির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এবং তাদের মাতৃভাষাকে সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে, চালু করতে হবে তাদের সারনা ধর্মের কোড । এইরকমই কয়েক দফা দাবি নিয়ে এই রেল অবরোধ শুরু হয়েছিল। তা এখনও পর্যন্ত জারি রয়েছে। পাশাপাশি তাঁরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে । এর ফলে পশ্চিম মেদিনীপুর থেকে ঝাড়খন্ড যাওয়ার পথে একাধিক পণ্যবাহী লরি এবং গাড়ি আটকে পড়ে রয়েছে। যার কারণে পুরুলিয়ার পরিস্থিতি এক কথায় অত্যন্ত বেসামাল হয়ে উঠেছে। দুদিন ধরে চলা রেল এবং সড়ক অবরোধের ফলে মারাত্মক সমস্যায় পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

এই রেল অবরোধের জেরে বাতিল করে দেওয়া হয়েছে টিটাগড়- হাওড়া স্টিল এক্সপ্রেস , হাওড়া বারবিল জনশতাব্দী এক্সপ্রেস , সাঁতরাগাছি-পুরুলিয়া রূপসী বাংলা এক্সপ্রেস, হাতিয়া-খড়গপুর এক্সপ্রেস সহ আরও বহু । বেশ কিছু স্পেশাল ট্রেনের যাত্রা পথ সংক্ষিপ্ত করে দেওয়া হয়েছে। কিছু কিছু ট্রেন ঘুর পথ দিয়ে চালানো হচ্ছে বলেও জানা গিয়েছে।

বৃহস্পতিবার পুরুলিয়া আদিবাসী কর্মী সমাজের জেলা সভাপতি গোপাল চন্দ্র মাহাতো জানান, পুরুলিয়া জেলা প্রশাসনের সঙ্গে প্রায় চার দফা বৈঠক ইতিমধ্যেই তাদের হয়ে গিয়েছে । কিন্তু সেই বৈঠকের ফল কিছুই হয়নি। প্রশাসনের তরফ থেকে তাদের কোনরকম সদুত্তর দেওয়া হয়নি। যার কারণে রাজ্য সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করতেই এই অবরোধ। পাশাপাশি তিনি জানান, এই কুড়মি সমাজের দাবি-দাওয়া সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট রাজ্য সরকার কেন্দ্র সরকারকে পাঠাবে এবং সেই রিপোর্টের প্রতিলিপি তাদের হাতে তুলে দিলে অবরোধ তুলে নিতে রাজি তাঁরা। জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে আজ তাদের হাতে সেই রিপোর্টের প্রতিলিপি তুলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। একমাত্র ওই রিপোর্টের প্রতিলিপি পাওয়ার পরেই এই অবরোধ উঠবে বলে সাফ জানিয়ে দিলেন তিনি।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories