Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

BJP: ‘পঞ্চায়েত ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী চায় বিজেপি’, কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে জানাল বিরোধী দলনেতা

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে পঞ্চায়েত ভোট চায় রাজ্য বিজেপি। কেন্দ্রের কাছে এই আবেদন করুক কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব, চাইছে বঙ্গ বিজেপি। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জন্য আদালতে যেতেও প্রস্তুত রাজ্য বিজেপি (BJP)। আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী চায় বাংলার বিজেপি নেতৃত্ব। পুজোর আগে পঞ্চায়েত ভোটের প্রস্তুতিতে নজর দিচ্ছে গেরুয়া শিবির। সেইসঙ্গে পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে উঠেছে বড়সড় প্রশ্ন। রাজ্য নির্বাচন কমিশনের ওপর ভরসা রাখতে চাইছে না, বিজেপি। সেক্ষেত্রে তাঁরা কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইছে।

পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে বিরোধীপক্ষ ও বাংলার শাসক দলের প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। ২৪-এর লোকসভা নির্বাচনের পাশাপাশি নজর রয়েছে পঞ্চায়েত ভোটে (Panchayat Election)। তাই আসন্ন নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইছে বঙ্গ বিজেপি। আর তার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করার কথা বলেছেন তাঁরা। মূলত তাদের দাবি যে, নিরপেক্ষ ভোট হওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রয়োজন আছে। তাঁরা বারবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।

প্রসঙ্গে বিধায়ক বঙ্কিম ঘোষ বলেছেন, ‘বৈঠকে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বলেছেন, রাজ্য সরকার বিভিন্ন কাজে আমাদেরকে অসহযোগিতা করেছেন। সেগুলিকে দেখার পাশাপাশি আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের কথা মাথায় রাখতে হবে। কেন্দ্রীয় বাহিনী যদি বুথে বুথে থাকে, তাহলে চুরি হবে না। যার ফলে কুড়ি থেকে পঁচিশ হাজার ভোট আমরা পাব। আগে পৌর নির্বাচনে যে লুট হয়েছিল, তার কথা কারোরই অজানা নয়। যদি আগে-ভাগে এবারে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে কথা বলে কেন্দ্রীয় বাহিনী পাওয়া যায়, তাহলে পঞ্চায়েত ভোটে আমরা অনেক ভালো রেজাল্ট করব’।

এদিকে কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh) বলেছেন, ‘সবদিক থেকে দেউলিয়ার রাজনৈতিক দল হলে এরকমই হয়। এই যে ২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন হয়েছিল তাতে কি ফল বেরল? সেটা কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে হয়েছিল, কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন করেছিল। সবথেকে বড় কথা, বিজেপির দাবিতে করোনা কালেও আট দফা ভোট হয়েছে। কী রেজাল্ট হয়েছে? এই যে কয়েকটি বিধানসভায় উপনির্বাচন হল, তা তো কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়েই হয়েছে। সেখানে ওরা হেরেছে। এই নেতাদের মধ্যে ব্যর্থতা, বিশ্বাসযোগ্যতা, গ্রহণযোগ্যতার অভাব থাকায় তাঁরা এই ধরনের দাবি করছে’।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories