Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বাড়ি বয়ে এসে খুনের হুমকি, ২৪ ঘন্টা না কাটতেই মৃতদেহ উদ্ধার এক সিভিকের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

রাতের অন্ধকারে এক সিভিক ভলেন্টিয়ারের বাড়িতে চড়াও হলেন তাঁরই মহিলা সহকর্মী । আর তারপর ওই সিভিক ভলেন্টিয়ারের স্ত্রীকে হুমকি দেন তাঁর স্বামীর প্রাণনাশের । এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছিল মালদার চাঁচোলের খরবা গ্রাম পঞ্চায়েতের গোপালপুর গ্রামে । পরবর্তীতে ২৪ ঘন্টা সময় না পেরোতেই উদ্ধার করা হল ওই সিভিক ভলেন্টিয়ার এর ঝুলন্ত মৃতদেহ। ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। নিহত সিভিক ভলেন্টিয়ারের নাম মঞ্জির ঔরঙ্গজেব। স্থানীয়দের প্রাথমিক অনুমান, মঞ্জির এবং অভিযুক্ত ওই মহিলার মধ্যে কোন অবৈধ সম্পর্কের জেরে এই ধরনের খুনের ঘটনাটি ঘটেছে।

নিহত মঞ্জিরের স্ত্রী রুমি খাতুন জানান, গতকাল সন্ধ্যায় তাঁর বাড়িতে এসে উপস্থিত হয় ফেরদৌসী খাতুন ওরফে লিলি নামে ওই মহিলা সিভিক ভলেন্টিয়ার। তারপর তিনি রুমিকে হুমকি দেন যে তাঁর স্বামীকে ফোন করে না ডাকলে তাকে খুন করে দেবেন তিনি । এই ধরনের হুমকি পর্ব মেটার পর বাড়ি ছেড়ে চলে যায় তাঁরা। তার সঙ্গে আরো চার-পাঁচজন ছিল বলে জানা যায়। পরবর্তীতে আজ সকালে স্থানীয় একটি আমবাগান থেকে ওই সিভিক ভলেন্টিয়ারের নিথর দেহ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে দেহটিকে দেখে আত্মহত্যা বলে মনে হলেও সন্দেহ হয় স্থানীয়দের । নিহতের এক আত্মীয় জানান, যদি আত্মহত্যা হত তাহলে মঞ্জিরের গলায় অত দাগ থাকতো না।

তাদের অভিযোগ নিহত সিভিক ভলেন্টিয়ার ষকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে। আর তারপর ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে আম বাগানে । এই ঘটনায় অভিযুক্ত ফিরদৌসী খাতুনকে আটক করেছে চাঁচোল থানার পুলিশ। ইতিমধ্যে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে স্থানীয় সূত্রে খবর, মঞ্জির প্রায় সাত বছর আগে এই সিভিক ভলেন্টিয়ারের চাকরি পায়। চাঁচোল থানার অধীনেই তিনি চাকরি করতেন । অন্যদিকে লিলিও চাঁচোল থানার অধীনে সিভিক ভলেন্টিয়ার হিসেবে চাকরি করতো। বছর ৩০ এর লিলি কালিগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দা। কিছুদিন পূর্বেই বিবাহ বিচ্ছেদ হয় তাঁর। আর এরপর একসময় মঞ্জিরছর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয় লিলির।

তবে বিগত কিছুদিন ধরে মঞ্জির নিজের সন্তান এবং পরিবারের কথা ভেবে লিলিকে এড়িয়ে যেতে থাকে। তাঁর ফোন ধরা বন্ধ করে দেয় যার কারণেই গতকাল লিলি তাঁর বাড়িতে এসে চড়াও হয় এবং তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় বলে জানান স্থানীয়রা। এই ঘটনায় মঞ্জিরের পরিবারের তরফ থেকে লিলির যথোপযুক্ত শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। অন্যদিকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে অভিযুক্তকে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories