Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রে iPhone-র দামে ৫০ হাজার টাকা ফারাক! কেন এমন ভেদাভেদ?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

এ বছরের সবচেয়ে দামি স্মার্টফোন লঞ্চ করল অ্যাপেল (Apple)। গতকাল সংস্থার ফার আউট ইভেন্টে আত্মপ্রকাশ হল iPhone 14, iPhone 14 Plus, iPhone Pro এবং iPhone 14 Pro Max এর। যদিও ভারতে আইফোন বরাবরই প্রিমিয়াম রেঞ্জের স্মার্টফোন হিসাবেই ধরা হয়, কিন্তু তাও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দামের থেকে যেন একটু বেশি দামে এ দেশ বিক্রি হয় আইফোন।

উদাহরণ হিসাবে যদি বলি, iPhone 14 এর ১২৮ জিবি বেস ভ্যারিয়েন্টের দাম ভারতীয় মুদ্রায় ৭৯,৯০০ টাকা। iPhone 14 Plus এর দাম ৮৯,৯০০ টাকা। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে iPhone 14 এর দাম শুরু ৭৯৯ ডলার থেকে যা ভারতীয় মুদ্রায় হিসাব করলে দাঁড়ায় প্রায় ৬৩,৬০০ টাকা, অর্থাৎ ১৬ হাজার টাকার পার্থক্য। ঠিক তেমনই iPhone 14 Plus মডেলের দাম যুক্তরাষ্ট্রে ৮৯৯ ডলার যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৭১,৬০০ টাকা। এখানেও ১৮ হাজার টাকার পার্থক্য।

এবার যদি iPhone 14 Pro এবং iPhone 14 Pro Max মডেলের দিকে আসা যায় তাহলে পার্থক্যটা ৫০ হাজার টাকায় গিয়ে ঠেকে। ভারতে iPhone 14 Pro এর দাম ১,২৯,৯০০ টাকা এবং iPhone 14 Pro Max এর দাম ১,৩৯,৯০০ টাকা। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে Pro মডেলের দাম শুরু ৯৯৯ ডলার থেকে যা ভারতীয় অর্থে প্রায় ৭৯,৬০০ টাকা হয়, অর্থাৎ সরাসরি ৫০ হাজার টাকার ফারাক। কিন্তু দুই দেশের মধ্যে দামের ক্ষেত্রে এমন বৈষম্য কেন?

মূলত, ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দামের মধ্যে পার্থক্য নির্ভর করে সাপ্লাই চেইন ফ্যাক্টর, আমদানি শুল্ক এবং শিপিংয়ের খরচের উপর। প্রতি বছরই দুই দেশে আইফোনের দামের ওঠানামা দেখা যায়। তবে ভারতে আইফোন ম্যানুফ্যাকচারিং শুরু হলে এই দাম অনেকটা কমে আসবে বলে আশা করছেন ব্যবহারকারীরা। যার ইঙ্গিত ইতিমধ্যে দিয়ে রেখেছে অ্যাপেল। সূত্রের খবর, শুধু iPhone 14 নয় আসন্ন iPhone 15 মডেলেরও ম্যানুফ্যাকচারিং সেটআপ ভারতে তৈরি করতে পারে অ্যাপেল।

Categories