Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Phulwari Sharif Case: বিহারের ৩০টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান NIA-এর

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

বৃহস্পতিবার বিহারের একাধিক স্থানে তল্লাশি চালিয়েছে NIA। ফুলওয়ারি শরীফ সন্ত্রাসী মডিউল মামলায় এদিন দারভাঙ্গা, আরারিয়া, ছাপরা এবং পাটনা জেলায় তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা। সূত্র অনুযায়ী, প্রায় ৩০টি জায়গায় তল্লাশি চালানো হয়েছে। প্রসঙ্গে সংস্থার কর্মকর্তা সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন যে, “মার্শাল আর্ট প্রশিক্ষণের ছদ্মবেশে অস্ত্র প্রশিক্ষণ শিবির চালানো হচ্ছিল’ বলে অভিযোগ রয়েছে।

চলতি বছরের জুলাইতে এই মামলায় বিহার পুলিশ গ্রেফতার করেছে তিনজনকে। যার পর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক তদন্তভার দিয়েছিল এনআইএ-কে। ঝাড়খণ্ডের একজন অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার মোহাম্মদ জালালুদ্দিন এবং আতহার পারভেজকে ১৩ জুলাই পাটনার ফুলওয়ারি শরীফ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। আর তার তিনদিন পর বিহার পুলিশের অনুরোধে উত্তরপ্রদেশ ATS নুরুদ্দিন জাঙ্গিকে লখনউ থেকে পাকড়াও করে। যার পর জানা যায়, গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের PFI-এর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে, জালালুদ্দিন নামের ব্যক্তি আগে ভারতের ছাত্র ইসলামিক আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তারা স্থানীয়দের শেখাছিলেন কীভাবে তরবারি এবং ছুরি ব্যবহার করতে হয়। সেইসঙ্গে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার জন্য তাদের প্ররোচিত করছিলেন। তদন্তে জানা গিয়েছে, অন্যান্য রাজ্য থেকে লোকেরা তাদের সঙ্গে দেখা করতে আসছিল।

বিহার পুলিশ জানিয়েছিল যে, তাঁরা ধৃতদের কাছ থেকে ইংরেজিতে লেখা দুটি নথি উদ্ধার করেছে। একটিতে লেখা, ‘ইন্ডিয়া ২০৪৭: টুওয়ার্ডস রুল অফ ইসলামিক ইন্ডিয়া’ এবং অপরটিতে ‘পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১’ লেখা রয়েছে। এরইসঙ্গে এটিএস বলেছিল যে, নুরুদ্দিন জিজ্ঞাসাবাদের সময় স্বীকার করেছে যে, সে ২০১৫-তে পিএফআই দারভাঙ্গা জেলার সভাপতির সংস্পর্শে এসেছিল। পাশাপাশি জুলাই মাসে এই মামলায় মানি লন্ডারিং তদন্ত শুরু করেছিল ইডি।

তারপর লখনউয়ের একটি বিশেষ পিএমএলএ আদালতে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট পিএফআই এবং এর আধিকারিকদের বিরুদ্ধে দুটি চার্জশিট দাখিল করেছে। এই তদন্তের অংশ হিসেবে এদিন বিহারের প্রায় ৩০ টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে এনআইএ।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories