Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম জুড়ল বছর ২-এর অনুপ্রভার, কীভাবে শুরু এই যাত্রা ?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

যে বয়সে বাচ্চারা সঠিকমত কথা শিখে উঠতে পারে না সেই বয়সেই নিজের অনন্য প্রতিভার ফলে ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম উঠল ছোট্ট অনুপ্রহার। তাঁর বয়স এখন ২বছর ৪ মাস । এখনও পর্যন্ত কিছু কিছু কথা স্পষ্ট নয়। তবে তারই মধ্যে সে গড় গড়িয়ে বলে চলেছে বিভিন্ন রাজ্যের রাজধানীর নাম। এছাড়াও নিজের মনে গেয়ে চলেছে জাতীয় সঙ্গীত। আরও ১৭ টি বিষয়ে নিজের প্রতিভার ফলে এই রেকর্ডে তাঁর নাম জুড়েছে। তবে ছোট্ট অনুপ্রভার এই যাত্রাপথ কীরকম ছিল ? কেমন ভাবেই বা তাকে তাঁর পরিবার তৈরি করল ? জানালেন অনুপ্রভার মা-বাবা।

উত্তর ২৪ পরগনার নব ব্যারাকপুরের বাসিন্দা হলেন রাজীব দেবনাথ এবং গায়ত্রী পাঠক । তাদের কন্যা সন্তান হল অনুপ্রভা । রাজীব বাবু বর্তমানে আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র কলেজের অধ্যাপক এবং গায়ত্রী দেবী একটি প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষিকা । তাদের মেয়ের যখন ১৭ মাস বয়স ঠিক সেই সময় গায়ত্রী দেবীর চোখে পড়ে একটি বিষয় । ছোট থেকে অনুপ্রভাকে খাওয়ানোর সময় ফোনে কবিতা শোনাতেন তিনি। দেখেন সেই সময় অনুপ্রভা আধো আধো ভাবে সেই কবিতাগুলিকেই আওড়ে চলেছে। এরপর থেকেই একটি দুটি করে কবিতা কিংবা সংখ্যা গণনা এই সমস্ত শেখানোর প্রক্রিয়া চলতে থাকে খেলার ছলে।

বর্তমানে অনুপ্রবাহ ২৯ টি রাজ্যের রাজধানীর নাম, মানব দেহের কুড়িটি বিভিন্ন অংশ চিহ্নিতকরণ, একটি করে শব্দ সহযোগে ইংরেজি বর্ণ বলা, একটি করে বাক্য সহযোগে বাংলা স্বরবর্ণ বলা, ইংরেজিতে বারো মাসের নাম ,সপ্তাহের সাত দিনের নাম, পৃথিবীর পাঁচটি মহাদেশের নাম , এছাড়াও সরস্বতী প্রণাম মন্ত্র, যোগাসন সহ আরও ১৭ টি বিষয়ে একেবারেই পারদর্শী। যার ফলে ২ বছর ৩ মাসেই অনুপ্রভাত দেবনাথ ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডেসে অংশগ্রহণ করে এবং ২ বছর ৪ মাসে সে সেই স্বীকৃতি অর্জন করে ফেলেছে।

অনুপ্রভার মা গায়ত্রী দেবী জানান, তাঁর মেয়েকে তিনি কখনই মোবাইলের ভরসায় ছেড়ে দেননি। যেই সময়টা তিনি তাঁর মেয়েকে দিতে পারেননি সেই সময় তাকে দিয়েছে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা । জোর করে অনুপ্রভাতে কিছুই শেখানো হয়নি। এই বয়সটি যদিও জোর করে শেখানোর মতো নয়। যেটুকু তাকে শেখানো হয়েছে সবটাই খেলার ছলে চেষ্টা করা হয়েছে। আর সেইগুলি শিখেও ফেলেছে অনুপ্রভা। তাঁর বাবা রাজীব বাবু জানান , শুধুমাত্র ফরমাল সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য এই চেষ্টা নয়। যাতে অনুপ্রভা বড় হয়ে বুঝতে পারে যে সে দু বছর বয়সেই সক্ষম ছিল এত কিছু কে শিখে নেওয়ার জন্য । এই বিষয়টি তাকে হয়তো আগামী ভবিষ্যতে উৎসাহ জোগাবে । আর এটাই তাদের প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিল অনুপ্রভাকে তৈরি করার। মেয়ের এই সাফল্যে খুশি মা-বাবা সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরাও। ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম তুলে নব ব্যারাকপুরের নাম উজ্জ্বল করল এই খুদে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories