Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বখাটে ছেলেদের দৌরাত্ম্যে অতিষ্ঠ ছাত্রীরা, মেয়েদের রক্ষার স্বার্থে পথে নামলেন মায়েরাই

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

পড়ুয়াদেরকে অভিভাবকরা স্কুলের ছাড়তে আসেন এই ধরনের চেনা ছবির সঙ্গে সকলেই পরিচিত । তবে মেয়েকে রক্ষা করার জন্য লাঠি হাতে মাকে রাস্তা পাহারা দিতে হচ্ছে এই ধরনের ছবি এর আগে হয়তো কখনও দেখা যায়নি। স্কুল শুরু হবার সময় এবং স্কুল ছুটি হবার সময়ে গেটের বাইরে পাহারা দিতে দেখা যাচ্ছে মায়েদের । এই ধরনের দৃশ্য দেখা গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গেই । পশ্চিম মেদিনীপুরের ঝাড়গ্রামে বাধ্য হয়ে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হয়েছে মহিলাদেরকে। বখাটে ছেলেদের টোন টিটকিরি , কু-নজর, কু-মন্তব্য, ইভটিজিংয়ে রীতিমতো বিরক্ত হয়ে উঠেছে স্কুলছাত্রীরা।

এই নিয়ে যতবার প্রতিবাদ করতে যাওয়া হয়েছে সমস্যা তত বেড়েছে । এই ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে স্কুল চত্বরে একাধিকবার মারপিট পর্যন্ত হয়েছে বলে খবর। অবশেষে বখাটে ছেলেদের কু-নজর থেকে নিজের মেয়েদের বাঁচাবার জন্য লাঠি হাতে রাস্তায় নেমে এসেছেন মায়েরা। তাদের সঙ্গ দিয়েছেন প্রতিবেশী অন্যান্য মহিলারাও। জানা যায় ঝাড়গ্রামের অশোক বিদ্যাপীঠ হাই স্কুল এবং বাণীতীর্থ হাই স্কুল একেবারেই পাশাপাশি । বিগত বেশ কিছুদিন ধরে স্কুল শুরু এবং ছুটির সময় ‘রোমিও’-দের দেখা মিল ছিল ঘনঘন।

প্রতিবাদ করেও কোন লাভ না হওয়ায় গত তিন দিন ধরে ছাত্রীদের মায়েরাই পাহারা দিচ্ছেন ওই স্কুল চত্বর। তাঁরা জানান , এই পদক্ষেপ গ্রহণ করার পর আর সেই সমস্ত ছেলেপুলেদের স্কুলের ধারেপাশে ঘেঁষতে দেখা যায়নি । অন্যদিকে স্কুলের বিরুদ্ধেও একাধিক অভিযোগ তুলেছেন অভিভাবকরা । প্রথমত স্কুলগুলির ঢোকার এবং বেরোনোর সময় নির্দিষ্ট নয়। তাই নিয়ম না মেনেই যখন তখন সুযোগ পেলেই ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুল থেকে বেরিয়ে আসছে। তাই স্কুলকে এই বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করার আবেদন জানান তাঁরা । এছাড়াও ওই স্কুলগুলির প্রধান শিক্ষকের তরফ থেকে জানা গিয়েছে যে, বিষয়টি আগেও তাদের নজরে এসেছে। এই নিয়ে পুলিশকে অভিযোগ জানানো হয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয়েছে এবং পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে । কিন্তু সেই সমাধান চিরস্থায়ী হয়নি। পুলিশি টহলদারি না থাকলে এলাকায় আবার এসে জমায়েত করত বখাটে ছেলেরা । তবে বিগত কয়েকদিন ধরে স্থানীয় মহিলাদের এই উদ্যোগ কাজে এসেছে। এদিকে অভিভাবকরা জানিয়েছেন যে, যতদিন না এই সমস্যার কোন স্থায়ী সমাধান তাঁরা খুঁজে পাচ্ছেন ততদিন এইভাবেই পাহারার কাজ চালিয়ে যাবেন বাড়ির মেয়েদের রক্ষা করার জন্য।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories