Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

জোড়া খুনের ব্লু প্রিন্ট তৈরি হয় হোটেলে, কাজ হলেই মোটা পারিশ্রমিকের প্রতিশ্রুতি

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

বাগুইআটির দুই তরতাজা কিশোরের খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমানে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে রাজ্যে। পুলিশের নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ প্রথম থেকেই তুলেছিল ওই দুই ছাত্রের পরিবার। এবার সেই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রীও। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়েছে । তবে মূল অভিযুক্ত সত্যেন্দ্র চৌধুরী এখনও পর্যন্ত অধরা। ধৃত অভিজিৎ নামে এক ব্যক্তি জানায়, সত্যেন্দ্র অতনু এবং অভিষেককে খুন করার ব্লু প্রিন্ট তৈরি করেছিল রাজারহাট এলাকার একটি হোটেলে। একই সঙ্গে কাজ শেষ হলেই মোটা টাকা পারিশ্রমিক দেওয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল সে।

অভিজিতের কাছ থেকে তদন্তকারী আধিকারিকরা জানতে পারেন যে, কিছুদিন আগেই সত্যেন্দ্র বিধাননগর কমিশনারের এলাকার রাজারহাটের একটি OYO হোটেলে দেখা করে অভিজিৎ এর সঙ্গে। সেই হোটেলে অভিজিৎ কর্মরত ছিল। এছাড়াও অভিযুক্ত বাকি তিনজনকে জোগাড় করেছিল সত্যেন্দ্র নিজের। এরপরই কীভাবে হত্যা করা হবে, কোথায় হত্যা করা হবে এই সমস্ত পরিকল্পনা করা হয়। সত্যেন্দ্রর আসল টার্গেট ছিল অতনু কিন্তু ঘটনার দিন অতনুর সঙ্গে তাঁর পিসতুতো ভাই অভিষেক থাকায় খুন করতে হয় তাকেও।

অন্যদিকে অভিজিৎ জানায় , কাজ হয়ে যাওয়ার পরেই তাদের প্রত্যেককে দুই থেকে তিন লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে এমনটাই জানিয়ে ছিল সত্যেন্দ্র। বাসন্তী হাইওয়ের ওপরে দুজনকে নৃশংস ভাবে খুন করা হয়। আর তারপর থেকেই উধাও সত্যেন্দ্র। অতনুর পরিবারের তরফ থেকে জানা গিয়েছে , বেশ কয়েকদিন ধরে সে মোটর বাইক কিনবে বলে যোগাযোগ রাখছিল সত্যেন্দ্রর সঙ্গে। এমনকি সূত্রের দাবি, ১৮ ই আগস্ট সত্যেন্দ্র তাদের দুজনকে নিয়ে গিয়েছিল একটি গাড়ির শোরুমে। আপাতত এই ঘটনায় পুলিশের গাফিলতির অভিযোগ ওঠায় ক্লোজ করা হয়েছে বাগুইআটি থানার ওসিকে। একইসঙ্গে তদন্তভার হস্তান্তর করা হয়েছে সিআইডিকে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories