Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

জীবনদায়ী ওষুধের আকাশ পথে উড়ান, মাধ্যম এবার ড্রোন

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

প্রত্যন্ত অঞ্চলে দ্রুত জীবনদায়ী ওষুধ পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে অনেক সময়ই রেলপথ কিংবা সড়ক পথ অত্যন্ত দীর্ঘ হয়। যার কারণে সময়মতো পরিষেবা দেওয়া সম্ভব হয় না । জরুরি ভিত্তিতে কলকাতা থেকে রাজ্যের কোন প্রত্যন্ত গ্রামের গ্রাহকদের কাছে ওষুধ পৌঁছে দেওয়ার বর্তমান উপায় হচ্ছে সড়ক কিংবা রেলপথ । তবে তার বাইরে গিয়েও কিছু চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। যাতে পরিষেবাতে গতি আনা যেতে পারে । বারুইপুরের একটি ওষুধ কোম্পানি এবার সেই উদ্যোগ নিল । ফ্লিপকার্ট হেলথের সঙ্গে যৌথভাবে তাঁরা ড্রোনের মাধ্যমে জরুরি পরিস্থিতিতে ওষুধ পৌঁছে দেবেন এমনটাই পরিকল্পনা করা হয়েছে।

সম্প্রতি স্কাই এয়ার মোবিলিটি কোম্পানি এবং ফ্লিপকার্ট হেলথ যৌথভাবে এই উদ্যোগ নেয় । হাতে-কলমে এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে একটি ড্রোনকে ওষুধ সহ পাঠানো হয়েছিল পূর্ব মেদিনীপুরের এগরাতে । যদিও দৃশ্যমানতা কম থাকার কারণে সেটি অবতরণ করে মহিষাদল এর কাছে একটি বাসস্ট্যান্ডে। পুলিশ গিয়ে সেটিকে উদ্ধার করে এবং এখনও পর্যন্ত সেটি পুলিশ হেফাজতেই রয়েছে। পরবর্তীতে ওই কোম্পানির তরফ থেকে সম্পূর্ণ বিষয়টি জানানো হয় পুলিশকে। প্রথমটাই তাঁরাও কিছুটা হতচকিত হন এবং পরবর্তীতে বুঝতে পারেন যে এটি কোন অসৎ উদ্দেশ্যে নয় বরং ভালো কাজের জন্যেই পরীক্ষা করা হচ্ছিল।

ওই মেডিসিন কোম্পানির এক আধিকারিক জানান, বারুইপুর থেকে ১০৪ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে অনলাইনে যদি কোন কাস্টমার জীবনদায়ী ওষুধ অর্ডার করেন তাহলে সেই ওষুধ ড্রোনের মাধ্যমে পৌঁছে দেওয়া হবে গ্রাহকদের কাছে। এতে সড়ক পথ কিংবা রেল পথে তুলনায় অনেকটাই কম সময় লাগবে। এই প্রক্রিয়ার বাস্তব রূপায়ন কী রকম হবে তা দেখার জন্য বারুইপুর থেকে সাড়ে তিন কেজি ওষুধসহ একটি ড্রোনকে পূর্ব মেদিনীপুর মাতঙ্গিনী হাজরা অফিসে পরিষেবা দেওয়ার জন্য পাঠানো হয় মঙ্গলবার। দুই থেকে আড়াই ঘন্টার মধ্যে এটি পূর্ব মেদিনীপুরে গিয়ে পৌঁছায় তবে জরুরি ভিত্তিতে অবতরণ করার জন্য মাতঙ্গিনী হাজরা অফিসে গিয়ে পৌঁছতে পারেনি।

ওই সংস্থার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত সম্পূর্ণ বিষয়টি ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে। তবে আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই এই পরিষেবা চালু হতে চলেছে। সুন্দরবন সহ বিভিন্ন যে প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলি রয়েছে এছাড়াও বাঁকুড়া, বীরভূম এবং শিলিগুড়ির মতো জায়গায় ড্রোনের মাধ্যমে ওষুধ পৌঁছে দেওয়া হবে খুবই সুবিধা জনক। ক্ষেত্রে ডেলিভারি চার্জ কত লাগবে এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু নির্ধারণ করা হয়নি কোম্পানির তরফ থেকে। তবে জানা গিয়েছে এই ড্রোনগুলি সবচেয়ে বেশি ৪০০ মিটার এয়ার রুটের মধ্যে চলাচল করতে পারবে । এই ট্রায়াল যদি সফল হয় তাহলে জরুরি পরিষেবা রাজ্যে যে কোন প্রান্তে পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে আলাদাই গতি যুক্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। শুধু ওষুধ নয় এই পরিষেবার মাধ্যমে পরবর্তীতে অন্যান্য পণ্য এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় পাঠানো সম্ভব হবে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories