Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

প্রেমের টানে দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে পাড়ি কিশোরীর, অবশেষে বাধ্য হয়ে ফিরতে হল ভারতেই

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

পড়শি দেশের যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক আর তারপর সেই সম্পর্ককে পরিণতি দিতে অবৈধ পথে পাড়ি বাংলাদেশ। সেখানে পৌঁছে বেঁধেছিলেন সংসার কিন্তু আইনের মারপ্যাঁচে তা ভাঙল। আবারও বাংলাদেশ ছেড়ে ফিরে আসতে হল নিজের দেশেই। এই ঘটনার কাহিনী যেন একেবারে চলচ্চিত্র। আর এর মুখ্য চরিত্র হলেন সাথি সরকার (১৭) নামে এক ভারতীয় কিশোরী। বাংলাদেশে অনধিকার অনুপ্রবেশের অভিযোগে সেখানেও আটক করা হয় তাকে। দীর্ঘ প্রায় নয় মাস সরকারি হেফাজতেই থাকেন তিনি । অবশেষে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার দর্শনা চেকপোস্ট সীমান্তের ৭৬ নম্বর মেন পিলারের কাছে একটি পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ওই কিশোরীকে তাঁর বাবা মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয় বাংলাদেশ সরকারের তরফ থেকে।

এই ঘটনার সূত্রপাত ২০২১ সালে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জেলার রাধাকান্তপুর গ্রামের বাসিন্দা সাথি সরকার । অনলাইন গেমিং এর মাধ্যমে বাংলাদেশে এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় হয় তাঁর । সেই পরিচয় থেকে বাড়তে থাকে কথাবার্তা এবং তারপর তৈরি হয় প্রেমের সম্পর্ক। এই প্রেমের টানেই ২০২১ সালের ১৬ই নভেম্বর ওই কিশোরী সাতক্ষীরা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে এসে প্রবেশ করে। সে অবশ্য সাহায্য নিয়েছিল দালালের । বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলার কুমারগাড়া এলাকার বাসিন্দা ওমর আলির সঙ্গে বিবাহ সম্পন্ন হয় তাঁর। সেখানে গিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে এই কিশোরী।

এদিকে নদিয়ায় থাকা সাথির মা-বাবা মেয়ের কোন খোঁজ না পেয়ে দুশ্চিন্তার মধ্যে দিন কাটাতে থাকেন। পরবর্তীতে তাঁরা খোঁজ পান যে মেয়ে রয়েছে সীমান্তের ওই দিকে । তাঁরা দ্বারস্থ হন তাহেরপুর থানার। পরবর্তীতে বিষয়টিতে নজরপাত করে ভারতীয় দূতাবাস। অন্যদিকে সাথি তখন নিশ্চিন্তায় করছেন সংসার । আচমকাই একদিন বাড়িতে এসে উপস্থিত হয় পুলিশ। তারপর তাকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। অপরাধ ছিল বিনা অনুমতিতে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ। তাকে প্রায় দীর্ঘ নয় মাস কুষ্টিয়ার সামাজিক ও প্রতিবন্ধী পুনর্বাসন কেন্দ্রে রাখা হয়। অবশেষে রবিবার দুপুরে সাথিকে হস্তান্তর করা হয় তাঁর বাবা-মায়ের কাছে ।

সাথির বাবা পরিতোষ সরকারের কথায়, বিগত ১১ টি মাস অত্যন্ত দুশ্চিন্তায় কেটেছে তাদের। রীতিমতো রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছিল মেয়ের হদিশ না পেয়ে। তবে অবশেষে মেয়েকে খুঁজে পাওয়ার পর স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন তাঁরা। তিনি দুই দেশের প্রশাসনকেই সহযোগিতার জন্য জানান ধন্যবাদ। তবে সাথির বিধি বাম। সুখের সংসার ছেড়ে তাকে আসতেই হয়েছে ভারতে । তবে তিনি জানান, পরবর্তীতে যদি সঠিকভাবে ফিরে আসার সুযোগ হয় তবে আবারও বাংলাদেশে আসার ইচ্ছে রয়েছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories