Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে বেফাঁস মন্তব্য, নোবেলকে আইনি নোটিস বাংলাদেশ আইনজীবীর

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

Mainul Ahsan Noble: ‘রবীন্দ্রনাথ দেবতা নন, বাংলাদেশের শিল্প চর্চায় এটাই তার জন্য বেশি’! সম্প্রতি বাংলাদেশের কুখ্যাত গায়ক হিরো আলমের পাশে দাঁড়িয়ে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে এমনই কটূক্তি করে বসেছিলেন বাংলাদেশের সঙ্গীত শিল্পী মইনুল আহসান নোবেল। এবার তার জেরেই শিল্পীকে আইনি নোটিস পাঠালেন চট্টগ্রামের এক আইনজীবী। নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার জন্য ঠিক সাত দিন সময় দেওয়া হয়েছে তাঁকে। নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে তা না করলে তাঁর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী।

‘সারেগামাপা’-এর হাত ধরে জনপ্রিয়তা পান নোবেল। কিন্তু পরবর্তী সময়ে সংগীতের চেয়ে বেশি বিতর্কের কারণে শিরোনাম দখল করেছেন তিনি। আর সেসবের জেরেই বর্তমানে ভারত-বাংলাদেশে তার জনপ্রিয়তা কমেছে অনেকাংশে।

সম্প্রতি, সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছিলেন, “রবীন্দ্রনাথ এদেশের কবিদের মূল্যায়ন করে যায় নাই, তারে নিয়ে এদেশে চর্চা হয় এটাই রবীন্দ্রনাথের জন্য অনেক। তাছাড়া বাংলাদেশের সাহিত্যে যেহেতু রবীন্দ্রনাথের অবদান নিতান্তই কম, নেই বললেই চলে, সেক্ষেত্রে তার গান এদেশে কেউ যদি প্যারিডো আকারে গায় সেটা রবীন্দ্রনাথের জন্যই মঙ্গলজনক।”

এরপর গত বুধবার নোবেল ফেসবুকে আরও লেখেন, “রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং তাঁর রাবীন্দ্রিক সাহিত্যচর্চা অবিলম্বে বাংলাদেশ থেকে বয়কট করা হউক। আমাদের জাতীয় কবি নজরুল! বিদ্রোহী কবি, যখন আমাদের অধিকার আদায়ে সক্রিয় ছিলেন। রোজ রোজ ব্রিটিশদের কাছে কারাবন্দি হতেন। কনডেম সেলে টর্চারের শিকার হচ্ছিলেন। তখন ব্রিটিশদের চাটুকারিতা করে সো-কল্ড বিশ্বকবি বিন্দাস আমাদের বাপ-দাদার রক্ত চুষে খাচ্ছিল।”

এদিন নিমেষের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় নোবেলের এই পোস্ট। বাংলাদেশের সংগীতশিল্পীর সমালোচনায় সরব হন বেশিরভাগ নেটিজেন। সারেগামাপা-এর মতো রিয়্যালিটি শো’য় রবীন্দ্র সংগীত গাওয়ার পরেও রবীন্দ্রনাথকে বয়কটের ডাক দেওয়া ভেকধারীর মতো আচরণ বলেও দাবি করছেন অনেকেই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories