Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পুজোর আগে ব্রণর সমস্যা? সমাধানে কাজে লাগান ঘরোয়া কিছু টোটকা

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

হু হু করে এগিয়ে আসছে পুজোর দিন গুলো। হাতে আর মাত্র কয়েকটা সপ্তাহ। সারাবছর সাজগোজ, মেকআপের ব্যাপারে তেমন নজর না দিলেও পুজোর সময় ছেলে মেয়ে নির্বিশেষে সকলেই চায় নিজেকে সুন্দর করে তুলতে। কিন্তু সেই ইচ্ছেয় বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় ব্রণ কিংবা চলে যাওয়া ব্রণর বিশ্রী দাগ। আর পুজোর আগে বর্ষার দিনে তৈলাক্ত ত্বকের ক্ষেত্রে সমস্যা আরও বারে।তাই পুজোর আগে রাতারাতি ব্রণ দূর করে মুখের টানটান উজ্জ্বল ভাব ফিরিয়ে আনার কিছু ঘরোয়া টোটকা রইল আজ আপনাদের জন্য। জেনে নিন সেগুলো কী কী-

১. পেঁয়াজ- মুখের যেকোনও কালো ছোপ কিংবা ব্রণর দাগ দূর করতে বেছে নিন পেঁয়াজ। এক টুকরো নিয়ে আলতো হাতে ব্রণ কিংবা চলে যাওয়া ব্রণর দাগের ওপর ৫ থেকে ১০ মিনিট ঘষে ধুয়ে নিন উপকার মিলবে।

২. অ্যালোভেরা জেল-
ত্বকের ক্ষতি সারিয়ে তা সুস্থ করে তুলতে এর জুড়ি মেলা ভার। নিয়মিত অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে ত্বকের কোলাজেন আর ইলাস্টিন তৈরির ক্ষমতা বাড়ে। তাতে ত্বকের প্রদাহ কমে, ত্বক তরুণতর হয়ে ওঠে। অ্যালোভেরায় অ্যালোসিন নামে একটি যৌগ আছে যা হাইপারপিগমেন্টেশন কমিয়ে ব্রণর দাগ হালকা করে দেয়। তাই ব্রণ সহ ত্বকের যাবতীয় সমস্যা দূর করতে রাতে শোয়ার আগে অ্যালোভেরা জেল ভালো করে ম্যাসাজ করলে মিলবে ফল।

৩. পাতিলেবুর রস- লেবু ত্বকের কালো দাগ বা ব্রণর ছোপ দূর করতে অত্যন্ত কার্যকরী একটি জিনিস। তুলো লেবুর রসে ভিজিয়ে নিন, তারপর কালো দাগে ৫ মিনিট ঘষে ঠাণ্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ৩-৪ বার ব্যবহারে উপকার পাবেন।

৪. বেকিং সোডা- প্রাকৃতিক এক্সফোলিয়েটর হিসেবে জুড়ি নেই বেকিং সোডার। পাশাপাশি পিএইচ ব্যালান্স বজায় রেখে ত্বকের কালো দাগও কমাতে পারে বেকিং সোডা। একভাগ বেকিং সোডার সঙ্গে দু’ভাগ জল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে সেটা ব্রণর দাগের উপর স্ক্রাবের মতো লাগালে কিছু সপ্তাহেই মিলবে ফল।

৫. টি ট্রি অয়েল- বাজার চলতি যেকোনও টি ট্রি অয়েল কিনে এনে তা ব্রণর সমস্যায় ব্যবহার করলে লালচেভাব, ফোলাভাব, ব্যথা রাতারাতি কমবে। এই তেল লাগালে ত্বকের ক্ষতও দ্রুত শুকিয়ে যায়। সেক্ষেত্রে সরাসরি ত্বকে এই তেল ব্যবহার করবেন না। অ্যালোভেরা জেলের সাথে মিশিয়ে কিংবা অলিভ অয়েল, নারকেল তেল বা আমন্ড অয়েলের মতো যেকোনও কেরিয়ার অয়েলের সঙ্গে মিশিয়ে লাগাতে হবে। রাতে শোয়ার সময় নিয়মিত এই তেল ব্যবহার করলে মিলবে ফল।

৬. রসুন- ব্রণর সমস্যা দূর করতে রসুন এক অব্যর্থ দাওয়াই। রসুন খুব ভাল অ্যান্টিসেপটিক ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কাজ করে। তাই মুখে আচমকা ব্রণ দেখা দিলে দু-কোয়া রসুন নিয়ে ব্রণর উপর ঘষতে থাকুন। তারপর সেটা পাঁচ মিনিট রেখে ইষদুষ্ণ জল দিয়ে ভাল করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। খুব সহজেই মিলবে উপকারিতা।

৭. অ্যাপল সাইডার ভিনিগার- রোগা হওয়ার পাশাপাশি ব্রণর দাগ কমাতে দারুণ ভালো কাজ করে অ্যাপল সাইডার ভিনিগার। এটি প্রাকৃতিক অ্যাস্ট্রিনজেন্ট হিসেবে কাজ করে, মুখে রক্ত সংবহন বাড়িয়ে তুলে নতুন কোষের জন্ম দিতে পারে এবং ত্বক ঝকঝকেও করতে পারে। অ্যাপল সাইডার ভিনিগারে তুলো ভিজিয়ে তা ব্রণর ওপর ১০ মিনিট রেখে দিন। দিনে তিন থেকে চারবার করলে এক সপ্তাহেই মিলবে ফল। আরও দ্রুত ফল পেতে ভিনিগারের সাথে মধু মিশিয়ে নিতে পারেন।

৮. বরফ- চটজলদি ব্রণ থেকে মুক্তি পেতে বরফ খুবই উপযোগী। তবে কখনওই বরফ সরাসরি মুখে দেবেন না। কারণ মুখের ত্বক আমাদের শরীরের অন্যান্য জায়গার তুলনায় বেশি নরম হয়। তাই বরফ একটা পরিষ্কার কাপড় জড়িয়ে নিয়ে তবেই মুখে লাগান। খুব তাড়াতাড়িই ব্রণর বা ত্বকের অন্য সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

Categories