Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রাখিবন্ধন মানেই ভাই-বোনেদের মুখে গালভরা হাসি, এই উৎসবের শুরুটা কেমন ছিল?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

আর মাত্র কয়েকটা দিন বাকি, তারপরেই বোনেরা রক্ষাকবচের মত তার ভাইদের হাতে বেঁধে দেবেন রাখি। মনে-প্রাণে বিশ্বাস করা হয়, এই রাখি ভাইদের সমস্ত বিপদের হাত থেকে রক্ষা করবে। অপরদিকে ভাইরাও বোনেদের সব বিপদে পাশে দাঁড়ানোর প্রতিজ্ঞা করেন। ভারতে ধর্মীয় এবং সামাজিক উৎসবগুলির মধ্যে অন্যতম হল এই রাখি। রাখিকে কেন্দ্র করেই রয়েছে পৌরাণিক এবং বহু ঐতিহাসিক ঘটনার ঘনঘটা। এমনকি রাখিবন্ধনের উল্লেখ পাওয়া গিয়েছে ৩২৬ খ্রিস্টপূর্বাব্দে আলেকজান্ডার এবং পুরুর যুদ্ধের সময়। পুরাণেও এই রাখি বন্ধনের কথা বহু জায়গায় বলা হয়েছে। মহাভারতেও দেখা গিয়েছিল দ্রৌপদী নিজের শাড়ি ছিঁড়ে কৃষ্ণের আঙুলে বেঁধে দিয়েছিলেন। পাশাপাশি রাখি বন্ধনকে কেন্দ্র করে প্রচলিত রয়েছে দেবী সন্তোষী এবং গণেশ পুত্রদের কাহিনী। ঐতিহাসিক দিক থেকে রবীন্দ্রনাথের রাখিবন্ধন উৎসবের কথা কারোরই অজানা নয়। এই রাখি হল ভ্রাতৃত্ববোধের প্রতীক।

কাহিনী ১

রাজসূয় যজ্ঞের সময় কৃষ্ণের হাতে মৃত্যু হয় শিশুপালের। সেই সময় সংঘাতে কৃষ্ণের হাতের একটি আঙুল কেটে রক্ত ঝরতে থাকে। সেই দৃশ্য দেখে স্থির থাকতে পারেননি দ্রৌপদী দ্রুত নিজের শাড়ি ছিঁড়ে কৃষ্ণের ক্ষতস্থানে বেঁধে দিয়েছিলেন। অপরদিকে সেদিন ভগবান কৃষ্ণ প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, সব বিপদে দ্রৌপদীর পাশে থাকবেন।

কাহিনী ২

রাখিবন্ধনের দিন সিদ্ধিদাতা গণেশের হাতে তাঁর বোন পরিয়ে দিয়েছিলেন সুন্দর একটি রাখি। তা দেখে ঈর্ষান্বিত হয়ে পড়েন গণেশের দুই পুত্র শুভ ও লাভ। তাঁরা গণেশের কাছে আবদার জানান ভগ্নীর জন্য। সিদ্ধিদাতা গণেশ তাঁর পুত্রদের মনোবাঞ্ছা পূরণের জন্য আগুন থেকে সৃষ্টি করেন একটি কন্যার। কন্যাটি ছিলেন সন্তোষী মা। এই সন্তোষী মা লাভ ও শুভর হাতে পরিয়ে দেন রাখি।

কাহিনী ৩

রাখিবন্ধন উৎসবকে কেন্দ্র করে রয়েছে দৈত্য রাজা বলি এবং দেবী লক্ষ্মীর কাহিনী। বলি ছিলেন বিষ্ণুর একনিষ্ঠ ভক্ত। তাই বলির রাজ্য রক্ষা করতে স্বয়ং বিষ্ণু রওনা দেন বৈকুণ্ঠ থেকে। বিষ্ণুর স্ত্রী দেবী লক্ষ্মী বৈকুণ্ঠে নিজের স্বামীকে ফিরিয়ে আনার জন্য অতি সাধারণ এক রমণীর ছদ্মবেশে যান বলি রাজার কাছে। বলি রাজা সসম্মানে সেই রমণীকে আশ্রয় দেন এবং শ্রাবণ মাসের পূর্ণিমায় তাঁর হাত থেকে রাখিও বাঁধেন। পরবর্তীকালে দেবী লক্ষ্মীর আত্ম পরিচয় জানতে পেরে বলিরাজা বিষ্ণুকে অনুরোধ করেন বৈকুণ্ঠে ফিরে যেতে। বিষ্ণুভক্ত বলি রাজা সেদিন সর্বস্ব ত্যাগ করেছিলেন। অনেকে মনে করেন, ভগ্নীসম লক্ষ্মীর জন্য রাজা বলির আত্মত্যাগের কাহিনি দিয়েই সূচনা হয়েছিল রাখিবন্ধন উৎসবের।

Categories