Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘ভালো থাকার নাটক করতাম’, এমনকী আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন দীপিকা! কেন জানেন?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

দীপিকা পাড়ুকোন। বলিউডের নামজাদা অভিনেত্রীদের মধ্যে থেকে একজন। কয়েরিয়ারে চরম সফলতা থাকা সত্বেও অবসাদে ভুগতেন তিনি। এমনকী আত্মহত্যার কথাও ভেবেছিলেন বি-টাউনের অন্যতম সেরা এই নায়িকা। বছর খানেক আগেই নিজের জীবনের সেই খারাপ সময়ের কথা সকলের সঙ্গে শেয়ার করেছিলেন দীপিকা। জানিয়েছিলেন এই জার্নিতে তিনি পাশে পেয়েছিলেন পরিবারকে। বিশেষ করে মা কে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ফের পুরনো কথা নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী। কালো রঙের সিকোয়েন্স ও শিমারি শাড়িতে নজরকাড়া লুকে দীপিকা জানান, “হঠাৎ করেই এটা হয়। আমি তখন কেরিয়ারের শীর্ষে ছিলাম। জীবনে সব ঠিকঠাকই চলছিল। তাই আমার মনখারাপের কোনও বিশেষ কারণ ছিল না। কিন্তু আমার মন ভালো ছিল না। আমি ব্রেক ডাউনে ভেঙে পড়তাম। আমি নিজেও জানতাম না এরকম কেন হচ্ছিল আমার সাথে। সারাদিন ঘুমাতাম। কারণ ঘুমই ছিল আমার পালানোর একমাত্র উপায়। ঘুমানোর সময়টা সবকিছু ভুলে থাকতে পারতাম। আমি তখন আত্মহত্যাপ্রবণ হয়ে উঠেছিলাম।

আমার বাবা-মা বেঙ্গালুরুতে থাকতেন, মাঝে মাঝে আমার সঙ্গে দেখা করতে আসতেন। আমি তখন ওদের দেখাতাম যে আমি খুব ভালো আছি। ভালো থাকার নাটক করতাম। কিন্তু একদিন ওরা বেঙ্গালুরু ফেরত যাচ্ছিল আর তখনই আমি কান্নায় ভেঙে পড়ি। মা আমায় জিজ্ঞেস করেন যে কেন কাঁদছি? কোনও বয়ফ্রেন্ড আছে কিনা? কাজের ক্ষেত্রে কিছু ঘটেছে কিনা? আমার কাছে কোনও উত্তর ছিল না। মা তখনই বুঝে গিয়েছিল কোনও একটা সমস্যা হচ্ছে। আমি অবসাদে ভুগছি।” একই সাথে দীপিকার সংযোগ, ‘আমার জন্যই মাকে ভগবান পাঠিয়েছিল বলে আমার ধারণা।’

তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও ২০১৫ সালে নিজের অবসাদগ্রস্ত দিন গুলোর কথা নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলেছিলেন অভিনেত্রী। চলেছিল তা নিয়ে বহুল চর্চা। অনেকেরই মতে রণবীর কাপুরের সাথে বিচ্ছেদের কারণেই অবসাদে ভুগছিলেন অভিনেত্রী। যদিও সেবিষয়ে কোনোদিনও মুখ খোলেন নি দীপিকা। ২০১৫ সালেই অবসাদ গ্রস্থ মানুষদের জন্য খুলেছিলেন ‘দ্য লাইভ লাভ লাফ ফাউন্ডেশেন’ নামে এক মনোবিদ স্বেস্থাসেবী সংস্থা। এছাড়াও ২০২০ সালে সুশান্ত সিং রাজতের আত্মহত্যা প্রসঙ্গে সরব হয়েছিলেন। ট্যুইট করে লিখেছিলেন, ‘অবসাদ আর মন খারাপ এক নয়। অবসাদ একটা রোগ। যেমন ক্যান্সার, ডায়বেটিস। তাই আমি অবসাদে আছি আর আমার মন খারাপ, দুটো এক নয়।’

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories