Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

Jalpaiguri: জল্পেশ মন্দিরের গর্ভগৃহে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা, বিকল্প ব্যবস্থার নির্দেশ বিচারপতির

।। প্রথম কলকাতা।।

সম্প্রতি শ্রাবণ মাসের গত সোমবারে জলপাইগুড়ির জল্পেশ মন্দিরের শিবের মাথায় জল ঢালার উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়া এক পুন্যার্থী দলের মর্মান্তিক পরিণতির ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় দশজন যুবকের । আহত হন আরও বেশ কয়েকজন । এই ঘটনায় রাজ্য থেকে শুরু করে কেন্দ্র পর্যন্ত শোক প্রকাশ করে। একইসঙ্গে অভিযোগ ওঠে যে মন্দিরের গর্ভ গৃহে প্রবেশ করার যে পথ সেটি একেবারেই অপ্রশস্ত। তার উপরে এখন শ্রাবণ মাস। তাই সোমবার গুলিতে ব্যাপক ভিড় দেখা যাচ্ছে পুণ্যার্থীদের । যার কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অসংখ্য মানুষ।

এই বিষয়টি জানিয়ে জলপাইগুড়ি সার্কিট বেঞ্চে মামলা দায়ের করা হয়েছিল । আর সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় মন্দিরের গর্ভ গৃহে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করলেন। জানিয়ে দেওয়া হল এবার থেকে শ্রাবণ মাসের আগামী ২ রবিবার এবং সোমবারে পুণ্যার্থীরা মন্দিরের গর্ভ গৃহে প্রবেশ করতে পারবেন না। সেখানে গিয়ে শিবের মাথায় জল ঢালতে পারবেন না। তাহলে উপায় কী? জানানো হল, মন্দিরের বাইরে তিন জায়গায় পুণ্যার্থীদের জল ঢালার ব্যবস্থা করে দিতে হবে। সেই জলই চ্যানেলের মাধ্যমে গর্ভগৃহে গিয়ে পৌঁছবে।

কোনভাবেই আর শ্রাবণ মাসের রবিবার এবং সোমবারে পুণ্যার্থীরা গর্ভ গৃহে প্রবেশ করে জল ঢালতে পারবেন না। কাজেই যত দ্রুত সম্ভব জেলা প্রশাসনকে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় তরফ থেকে। বেশ কয়েক বছর এই মন্দিরটি পরিত্যক্ত হয়ে পড়েছিল। কোচবিহার রাজবংশের আমলে ফের এটিকে সংস্কার করা হয়।চালু হয় মন্দিরে পুজো। তারপর থেকেই শ্রাবণ মাসের সোমবার গুলিতে ব্যাপক ভক্ত সমাগম চোখে পড়ে এই মন্দিরে । শুধু জেলা নয় জেলার বাইরে থেকেও বহু পুণ্যার্থীরা আসেন এখানে। সেই ভিড় সামলাতে রীতিমত হিমশিম খেতে হয় মন্দির কর্তৃপক্ষকেও । কাজেই আবারও যেন ওই মন্দিরকে কেন্দ্র করে কোনরকম দুর্ঘটনা না ঘটে এই বিষয়টিকে মাথায় রেখেই নির্দেশ বিচারপতির।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories