Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

দক্ষিণী ছবির দাপটে মুখ থুবড়ে পড়ছে বলিউড! আমির খানের ছবি বয়কটের ডাক নেটপাড়ায়

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

দক্ষিণী ছবির দাপট, আর সেই ঝড়ে একের পর এক মুখ থুবড়ে পড়ছে বলিউডের সুপারস্টারদের ছবি। চলতি বছরে বলিপাড়ায় সেভাবে হিট ছবির দেখা মেলেনি। অথচ মোটা টাকা লাভ করে বেরিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণী ছবিগুলি। এসবের মাঝখানেই বেজায় সমস্যায় পড়েছেন আমির খান। তাঁর ছবি ‘লাল সিং চাড্ডা’র ট্রেলার সামনে আসতেই দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে গিয়েছে নেট দুনিয়া। জোর বিতর্ক তৈরি হয়েছে মিস্টার পারফেক্টশনিস্টের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে। রীতিমত ট্যুইটারে এখন ট্রেন্ডিংয়ে রয়েছে বয়কট লাল সিং চাড্ডা হ্যাশট্যাগ। কিন্তু কেন এই ছবিকে বয়কট করা হচ্ছে? যদিও এর বিতর্ক শুরু হয়েছিল বেশ কয়েক বছর আগে।

আশঙ্কা বিতর্কের বলি হবে আমির খানের ছবি!

‘লাল সিং চাড্ডা’র শ্যুটিং হয়েছে কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী পর্যন্ত ঘুরে ঘুরে। ছবিটি মূলত হলিউড ক্লাসিক Forest Gump এর রিমেক। টম হ্যাঙ্কস অভিনীত ‘ফরেস্ট গাম্প’-এ বেশ কত গুলি ঘনিষ্ঠ দৃশ্য ছিল, কিন্তু আমির খানের ছবিতে সেই দৃশ্য ছেঁটে ফেলা হয়েছে। এক্ষেত্রে অভিনেতা নিজেই জানিয়েছেন, ভারতীয় দর্শকদের কথা মাথায় রেখে সেই দৃশ্য বাদ দেওয়ার কথা ভাবনা চিন্তা করা হয়েছে। তাঁরা চান সাধারণ মানুষ পুরো পরিবারের সঙ্গে এই ছবি দেখুক। কিন্তু এসব করেও কি আদৌ সিনেমাটি লাভের মুখ দেখতে পারবে? রিলিজের আগেই যে শুরু হয়ে গিয়েছে চরম বিতর্ক। যদিও এই বিতর্ক আজকের নয়, যখন ছবিটিই তৈরি করার কথা ঠিক হয় অর্থাৎ ২০২০ সাল থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবিটি সম্পর্কে নানান বিরূপ মন্তব্য নেটিজেনদের কাছ থেকে পাওয়া গিয়েছে। লকডাউনের মধ্যেই যখন নতুন করে ছবির শ্যুটিং শুরু হয়েছিল তখন অনেকেই আশঙ্কা করেছিলেন এই ছবিটি বিতর্কের বলি হতে পারে।

বিতর্কের সূত্রপাত

এই বিতর্কের সূত্রপাত ২০১৫ সালে। যখন আমির খান এবং তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী কিরণ ভারত ছেড়ে চলে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তাঁরা মনে করেছিলেন ভারতে অসহিষ্ণুতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই তাঁরা এই দেশে সন্তান নিয়ে নিরাপদ মনে করছেন না। বহু মানুষ মন্তব্য করছেন, যখন এই দেশ নিরাপদ নয় তাহলে সেখানে কেন ছবি রিলিজ করা হচ্ছে? নেটিজেনদের একাংশের দাবি অনুযায়ী, আমির খান ভারতবর্ষকে নাকি মোটেই ভালোবাসেন না। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় আরেকটি পোস্ট ভাইরাল হয়েছে। যেখানে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে করিনা কাপুর আর আমির খানের পুরনো কিছু বক্তব্য। পোস্ট অনুযায়ী করিনা কাপুর বলেছিলেন, তাঁদের সিনেমা দেখার জন্য কোন জোর করেন না। অপরদিকে আমির খানের মন্তব্যের জায়গায় রয়েছে, শিবলিঙ্গে দুধ অর্পণ ইউজলেস। সেই টাকা দিয়ে কোন অসহায় শিশুর জন্য দুধ কেনা যেতে পারে। এক্ষেত্রে আবার অনেকে মন্তব্য করেছেন, তারা ২০০ টাকায় সিনেমার টিকিট কেনার বদলে সেই টাকায় কুড়ি গ্লাস দুধ কিনবেন। তার মধ্যে কয়েক গ্লাস অর্পণ করবেন শিবের মাথায়। আর বাকিটা দুঃস্থ শিশুদের মুখে তুলে দেবেন। এই সব বিতর্কে মাঝে আবার কনট্রোভার্সি কুইন কঙ্গনা রানওয়াত এই বিতর্কের মাস্টারমাইন্ড বলেছেন আমির খানকে।

বিতর্কে আগুনে ঘি: করণ জোহরের আড্ডা

সম্প্রতি এই বিতর্কের আগুনে ঘি ঢেলে দিয়েছে করণ জোহরের কফির আড্ডায় আমির খানের বক্তব্য। যেখানে উপস্থিত ছিলেন আমির খান এবং করিনা কাপুর খান। আড্ডা চলাকালীন করণ আমির খানকে ভারতীয় ক্রিকেটের তিনজন খেলোয়াড়ের নাম বলতে বলেন। তখন অমির খান রোহিত শর্মার নাম বলতে গিয়ে মুখ ফসকে বলে ফেলেন রোহিত শেট্টির কথা। যদিও তিনি তৎক্ষণাৎ শুধরে নিয়ে বলেছিলেন যে তিনি টেনশনে বলে ফেলেছেন। অপরদিকে এই নিয়ে রাগে ফেটে পড়েন রোহিত শর্মার ভক্তরা। অনেকে ট্যুইটারে পোস্ট করে লেখেন, রোহিত শর্মা হলেন ভারতীয় টিমের অমূল্য সম্পদ। সেখানে আমির খান রোহিত শর্মা আর রোহিত শেট্টিকে কীভাবে এক করে দিলেন।

ছবিটি দেখতে অনুরোধ আমির খানের

‘লাল সিং চাড্ডা’ ১১ই আগস্ট মুক্তি পেতে চলেছে। এই ছবিতে আমির খান ছাড়াও দেখা যাবে করিনা কাপুর, নাগা চৈতন্য, মোনা সিং সহ আরো অনেককে। কিন্তু সমস্যা হল এই ছবি নিয়ে আমির বারবার বিতর্কে জড়িয়ে পড়ছেন। যদিও তিনি স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন তিনি এই বিতর্কে জড়াতে চান না। তিনি এই ছবিটি সবাইকে দেখতে অনুরোধ করেছেন। তিনি এক সম্মেলনে জানিয়েছেন, দয়া করে যেন তাঁর ছবি খানা বয়কট না করা হয়। কারণ এক্ষেত্রে তখন তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, এই ঘটনায় তার মনে কি কোন কষ্ট হয়? তখন তিনি উত্তর বলেন, “হ্যাঁ আমার খারাপ লাগে, আমার এটা ভেবে আরো খারাপ লাগছে এই ধরনের প্রচার যারা করছে তারা অনেকেই মনে মনে বিশ্বাস করেন আমি ভারতবর্ষকে ভালোবাসি না। কিন্তু এটা বরং ভুল ও মিথ্যে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে বহু মানুষ এমনটা মনে করেন। দয়া করে আমার ছবি বয়কট করবেন না, দয়া করে ছবিটি দেখুন”।

ট্রেলার দেখে মুখ ঘুরিয়েছে অনেকেই

এবার শুধু ছবি মুক্তির অপেক্ষায়। মুক্তির পর দেখা যাবে দর্শকরা ঠিক কীভাবে গ্রহণ করছেন। যদিও ইতিমধ্যেই ট্রেলার সামনে আসতেই শুরু হয়ে গিয়েছে তুমুল সমালোচনা। অনেকে লিখেছেন আমিরের এখানে পাঞ্জাবি উচ্চারণ খুব একটা ভালো না আবার অনেকে লিখেছেন, এই ছবিতেও তিনি পিকের মত অভিনয় করেছেন। তাঁর সব ছবিতেই নাকি এক্সপ্রেশন এক। আবার অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন, পাঁচ বছর পর আমির খান পর্দায় ফিরে কেন অরিজিনাল ছবিকে বেছে নিলেন না? কেন তিনি ছবির রিমেক করছেন? স্বাভাবিকভাবেই এই নিয়ে উঠছে নানান প্রশ্ন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories