Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

সাবধান! ট্যাটুর কারণে জীবন চলে যেতে পারে, HIV সংক্রমিত একসঙ্গে ১২ জন

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

অনেকেই শখ করে নিজেদের শরীরে ট্যাটু করান, আবার অনেকে নিজেদেরকে সুন্দর করে তুলতে ট্যাটুকে বেছে নেন। কিন্তু এই ট্যাটু এবার মারাত্মক বিপদ ডেকে আনল ১২ জনের শরীরে। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের বেনারসে, যেখানে ট্যাটু করানোর পরেই এইচআইভি সংক্রমিত হয়েছেন ১২জন।

এইচআইভি সংক্রমণ অত্যন্ত ভয়ঙ্কর। এই সংক্রমণ থেকে এইডসের পৌঁছাতে বেশ কয়েক বছর সময় লাগে। এর কারণে মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা একেবারে তলানিতে গিয়ে পৌঁছায়। স্বাভাবিকভাবেই তখন যে কোনো রোগ সহজেই ওই ব্যক্তিকে আক্রমণ করতে পারে। তবে এই সময় সীমাকে একটু পিছিয়ে দেওয়া যায়, কিন্তু সেই চিকিৎসা অত্যন্ত খরচ সাপেক্ষ।

উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। হাসপাতালের পরীক্ষায় দুই মাসে ১০ জন ছেলে এবং ২ জন মেয়ের শরীরে এইচআইভি ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। তারা প্রত্যেকেই ট্যাটু করিয়েছিলেন। সেই ট্যাটু থেকেই তাদের শরীরে প্রবেশ করে এই মারণ ভাইরাস।

এই বিষয়ে অ্যান্টি রেট্রো ভাইরাল ট্রিটমেন্ট সেন্টারের চিকিৎসকরা জানান, সংক্রমিত হওয়া প্রত্যেক জনই সম্প্রতি ট্যাটু করিয়েছিলেন। তারপরেই তাদের বারংবার জ্বর থাকে এবং শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। তারপর বিষয়টি তদন্ত করে রিপোর্ট করতেই দেখা যায় তারা HIV সংক্রমিত। তদন্ত উঠে এসেছে, ওই ব্যক্তিরা অস্থায়ী এক দোকান কিংবা মেলা থেকে ট্যাটু করিয়েছিলেন। চিকিৎসকদের মতে, এক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছিল সংক্রমিত সূচ। সেই সূচ থেকেই এই ভাইরাস তাদের শরীরে প্রবেশ করে।

ট্যাটু করানোর পরেই তারা প্রত্যেকেই খুব অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওষুধ খেয়েও কোন সুফল পাচ্ছিলেন না। ধীরে ধীরে তাদের ওজন কমতে থাকে। যখন দেখেন তাদের স্বাস্থ্যের কোন উন্নতি হয়নি তখন এইচআইভি পরীক্ষা করা হয়। এর কারণ হিসেবে সংক্রমিত সূচের ব্যবহারকেই দায়ী করা হচ্ছে।

তাই ট্যাটু করার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যেন একই সূচ ব্যবহার করা না হয়। অনেক সময় দামের কারণে একই সূচ দিয়ে একাধিক ব্যক্তির শরীরে ট্যাটু করা হয়। যার কারণে খুব সহজেই ছড়িয়ে পড়ে সংক্রমণ। ট্যাটু শিল্পী এই সংক্রমণ সম্পর্কে সচেতন কিনা সেই বিষয়েও বিবেচনা করতে হবে। এর আগে বেনারসের মত এই ধরনের ঘটনা খুব একটা দেখা যায়নি। আপাতত এই সস্তার ট্যাটুর কারণে ১২ জনের জীবন ঝুঁকির মুখে ।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories